লক্ষ্মীপুরে জমি জবর দখলে বাঁধা দেয়ায় নারীকে পিটিয়ে আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
লক্ষ্মীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ কে কেন্দ্র করে হামলা চালিয়ে তাহেরা খাতুন নামে এক নারীকে পিটিয়ে আহত করার হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) দুপুরে সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের চরমনসা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী পরিবারের লোকজন ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত ওই নারীকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত তাহেরা খাতুন একই গ্রামের আমিন উল্যার স্ত্রী।

স্থানীয় ও আহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, চরমনসা গ্রামের তাহেরা খাতুনদের সাথে প্রতিবেশি বাড়ির মৃত ফয়েজ আহমদের ছেলে মো. শাহজাহান গংদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। এনিয়ে শাহজাহানের লোকজন বিভিন্ন সময় প্রাণে হত্যার হুমকি দিলে থানায় লিখিত অভিযোগও করেন অসহায় তাহেরা খাতুন। ঘটনার দিন প্রতিপক্ষ শাহজাহানের ছেলে ফয়সাল মাহমুদ (২২) লোকজন নিয়ে বিরোধকৃত সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে নির্মাণ কাজ করতে ঘটনাস্থলে যায়। খবর পেয়ে ভুক্তভোগী তাহেরা খাতুন প্রতিপক্ষকে বাধা দেয়। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে ফয়সাল।

এক পর্যায়ে তারই নেতৃত্বে শাহজাহানের অপর ছেলে নাছির উদ্দিনসহ সবুজ, মুরাদ, মাসুদ মেস্ত্রীসহ ১০/১২জন হামলা চালিয়ে লোহার রড দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুত্ব আহত করে তাহেরা খাতুনকে। উপায় না পেয়ে আহত তাহেরা খাতুনের মেয়ে তানিয়ো সুলতানা হটলাইন ‘৯৯৯’ এ ফোন দিয়ে সহযোগীতা চায়। পরে ৯৯৯ এর খবরের মাধ্যমে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এনিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভূখছেন তাহেরার পরিবার। হামলার ঘটনার বিচার দাবী করেছেন তারা।

অভিযুক্ত ফয়সাল মাহমুদ বলেন, ওই জমি আমাদের দখলীয় ও মালিকিয় সম্পত্তি। থানায় শালিশ বৈঠকে তাহেরা খাতুন কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। আজ নির্মাণ কাজ করতে গেলে সে সরঞ্জামাধি নষ্ট করতে গিয়ে নিজেই গর্তে পড়ে আহত হয়। তাকে মারধরের বিষয়টি সত্য নয়।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার উপ-সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) জিয়াউল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থল থেকে আহত নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা হলে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email