শেয়াল এবং আঙ্গুর ফলের গল্প

এক বিকালে একটি শেয়াল যখন জঙ্গলের মধ্যে ঘুরতে বেরিয়েছিল সে তখন ঘুরতে ঘুরতে একটি গাছের নিচে এসে উপস্থিত হল,যেখানে সে তার মাথার ঠিক উপরটাতেই একগোছা আঙ্গুর ঝুলতে দেখল।সেই বড় বড় রসাল আঙ্গুরগুলি দেখামাত্র তার জিভে জল এসে গেল।আর সে মনে মনে নিজেকে বলতে লাগল সে যদি ঐ আঙ্গুর গোছাখানি পেত আহা না জানি তবে সে কত আনন্দেই এই ঘর্মাক্ত গরমের বিকেলে তার তৃষ্ণা নিবারণ করে হৃদয়খানি জুড়াতে পারত।

আর ভাবা মাত্রই সে আঙ্গুরগুলির নাগাল পাওয়ার জন্য লাফ দিতে থাকল কিন্তু তার প্রয়াসে সে ব্যর্থ হল।সে বারবার চেষ্টা করে চলতেই থাকল কিন্তু প্রতিবারই শেয়াল মশাই বিফল হল।এরকম আরও বহুবার চেষ্টায় ব্যর্থ হওয়ার পর বেচারা শেয়ালটি আশাই ছেড়ে দিল,আর ফিরে যেতে যেতে নিজেকে এই বলে সান্ত্বনা দিল যে ভালই হয়েছে সে আঙ্গুরগুলি পায়নিসেগুলি বড্ড টক ছিল।

তাহলে শিয়াল এবং আঙ্গুর ফল গল্পটির নীতিকথাটি কি?

ছোটদের জন্য এই টক আঙ্গুরের গল্পটি নেওয়া হয়েছে ঈশপের ছোটগল্প “শেয়াল এবং আঙ্গুর ফল” থেকে,যেটি একটি জনপ্রিয় নীতিমূলক গল্প।এই অসাধারণ গল্পটি থেকে আমরা যে শিক্ষা পাই তা হল,আমাদের নাগালের বাইরে থাকা যেকোনোও জিনিসকে অপছন্দ করা বা অবজ্ঞা করা কিম্বা দোষারোপ করাই হল আমাদের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি।

এই ছোটগল্পটি আবার আমাদের এই শিক্ষাও দেয় যে,আমাদের লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে,সেই কাজটি করা সম্ভব নয় এটি ভাবা বা চেষ্টা করার কোনও ভান করার পরিবর্তে কঠোর পরিশ্রম করা প্রয়োজন,আর সত্যি করে কঠোর পরিশ্রম ও অনুশীলন অবিশ্যম্ভাবী রূপে সাফল্য নিয়ে আসেই।

Print Friendly, PDF & Email