লক্ষ্মীপুরে পল্লী বিদ্যুতের ‘খোলা তারে’ স্পৃষ্ট হয়ে রাজমিস্ত্রির মৃত্যু

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় পল্লী বিদ্যুতের খোলা তারে জড়িয়ে রাজমিস্ত্রি সেলিম মুন্সীর ছেলে মো. শামিম হোসেন (৯) দুই পা হারানোর দুই মাস পার না হতেই আবারও একই ভবনের ছাদে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন করিম হোসেন (৩২) নামে এক রাজমিস্ত্রি।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় রামগঞ্জ পৌর সাতারপাড়া গ্রামের সোনালী ব্যাংক রামগঞ্জ শাখার সিনিয়র অফিসার মো. মহসিন মিয়ার ভবনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে।

মৃত করিম হোসেন উপজেলার লামচর ইউনিয়নের মজুপুর গ্রামের দক্ষিণের বাড়ির আবুল কাশেমের ছেলে।

জানা যায়, গত ১৮ আগস্ট উপজেলার সমেষপুর গ্রাম থেকে রামগঞ্জ পৌর শহরের মহসিন মিয়ার বাড়িতে বেড়াতে আসেন রাজমিস্ত্রি সেলিম মুন্সী ও তার ছেলে মো. শামিম। বিকেলে খেলতে গিয়ে নির্মাণাধীন ভবনের একতলার ছাদের উপর দিয়ে টানা পল্লী বিদ্যুতের খোলা তারে স্পৃষ্ট হয়ে মারাত্মক আহত হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হসপিটালে নেয়ার পর চিকিৎসক শিশুটির দুই পা কেটে ফেলে।

এ ঘটনায় ভবন মালিক মহসিন মিয়া ও শিশুটির আত্মীয়স্বজন পল্লী বিদ্যুতের রামগঞ্জ শাখার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. নুরুল আমিন ভূইয়াকে কয়েকবার লিখিত ও মৌখিকভাবে জানালেও তারা কোনো প্রতিকার করেনি বলে অভিযোগ ভবন মালিকের।

তার মাত্র দুই মাস পর আজ সকাল সাড়ে ১১টায় ওই ভবনের দ্বিতীয় তলায় কাজ করার সময় রড আনতে গিয়ে অসাবধানতাবশত রাজমিস্ত্রি করিম হোসেন খোলা তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গুরুতর আহত হন।

সঙ্গে সঙ্গে তাকে রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক করিম হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।

নির্মাণাধীন ভবনের মালিক ব্যাংক কর্মকর্তা মো. মহসিন বলেন, আমরা ২/৩বার লিখিত ও মৌখিকভাবে পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএমের কাছে তারগুলো সরানো বা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বললেও তারা অদ্যাবধি কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পল্লী বিদ্যুৎ রামগঞ্জ শাখার ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. নুরুল আলম ভূইয়া লিখিত বা মৌখিক অভিযোগ পাওয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে আমরা কিছুই জানি না।

তবে তিনি জানান, মাস দুয়েক পূর্বে কোন এক ভবনের ছাদে খেলতে গিয়ে বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে একটি শিশু আহত হয়েছে।

বিষয়টি আরও আগে জানলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হতো।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, আমরা খবর পেয়েছি। এখনো কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email