অন্যের জীবন বাঁচাতে প্লাজমা দিলেন লক্ষ্মীপুর পুলিশের ১৬ সদস্য

নিজস্ব প্রতিবেদক :

“প্লাজমায় বাঁচুক অন্যের জীবন, জাগ্রত মানবতায় দৃঢ় হউক পুলিশ জনতার বন্ধন” এ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে লক্ষ্মীপুরে করোনাজয়ী ১৬জন পুলিশ সদস্য প্লাজমা ডোনেট করেছেন। বুধবার (০২ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ পুলিশের ব্লাড ব্যাংক রাজারবাগ সেন্টাল পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে প্লাজমা ডোনেট করেন তারা। এর আগে লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান (পিপিএম-সেবা) এর নির্দেশে গত মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুলিশ লাইন্স থেকে ঢাকার উদ্যোশে রওনা করে তারা।

জানা গেছে, দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর লক্ষ্মীপুরে পুলিশ শুধু মানুষকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সচেতনতামূলক কর্মকান্ডই পরিচালনা করেনি, তারা কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষকে খাদ্য সহায়তা, করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসা, হাসপাতালে পৌঁছে দেয়া, লাশ দাফন ও সৎকারসহ নানাবিধ মানবিক কাজের মাধ্যমে মানুষের পাশে ছিলেন। দায়িত্ব পালনকালে লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশের ৮৭ জন সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। এরমধ্যে ৮০জন সুস্থ্য হয়েছেন। সুস্থ্যদের মধ্যে ১৬জন প্লাজমা দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান (পিপিএম-সেবা) জানান, দেশে করোনাযুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকেই লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্য সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে মাঠে থেকে তাদের দায়িত্ব পালন করেছেন। যে কারণে আমাদের আক্রান্তের হার বেশি। আমরা এ দুর্যোগের সময়ে মানুষের পাশে মানবিক হয়ে কাজ করতে চাই। এ জন্যই করোনাজয়ী ১৬ পুলিশ সদস্য স্বেচ্ছায় করোনায় আক্রান্ত অন্য রোগীদের সুস্থ করতে প্লাজমা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তাদেরকে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বুধবার বাংলাদেশ পুলিশের ব্লাড ব্যাংক রাজারবাগ সেন্টাল পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে প্লাজমা ডোনেট করেছে তারা।

Print Friendly, PDF & Email