লক্ষ্মীপুরে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন বাবু

লক্ষ্মীপুর : জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর দাফন সম্পন্ন হয়েছে লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে। মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টায় উপজেলার রামদয়াল আবদুল হাদী কলেজ মাঠে জানাজা শেষে রবরোড এলাকায় আমজাদিয়া জামে মসজিদের পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার তার জানাজায় দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও হাজারো মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এর আগে সকাল সোয়া ১০টায় রাজধানীর  নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে তার প্রথম জানাজা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর এভার কেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার মৃত্যুতে রামগতি-কমলনগরে শোকের ছায়া নেমে আসে।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি সাবেক মন্ত্রী আ স ম আবদুর রব, স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, সাবেক সংসদ সদস্য বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজান, সাবেক সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদুন্নাহার লাইলী, সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুন, রামগতি উপজেলা চেয়ারম্যান শরাফ উদ্দিন আজাদ সোহেল, কমলনগর উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বাপ্পী, কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এ কে এম নুরুল আমিন মাস্টার, আওয়ামী লীগ নেতা, আবদুল জাহের সাজু, কমলনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা শাহীন, জহির, সেলিম, সোহাগ, ছাত্র নেতা নিয়াজ মাহমুদসহ নেতাকর্মীরা।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শফিউল বারী বাবু বেশ কিছুদিন ধরে ফুসফুসে সংক্রমণজনিত রোগে ভুগছিলেন। এর ফলে তার শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। সোমবার হঠাৎ করে তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে দ্রুত তাকে আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এখানে অবস্থার আরও অবনতি হলে রাত ২টার দিকে তাকে এভার কেয়ার (সাবেক এ্যাপোলো) হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৫১ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মার্কেটিং বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর  ডিগ্রি অর্জন করেন।

Print Friendly, PDF & Email