`এমন কষ্টের সময় এর আগে আসেনি’-হেলোর অনুষ্ঠানে আয়া 

ঢাকা :

`জীবনে অনেক কষ্ট করলাম, ছেলে মেয়েকে মানুষ করতে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি। কিন্তু করোনারমত এমন কষ্টের সময় এর আগে আসেনি, খাবার ও টাকার এমন কষ্টে কখনো পড়িনি।’ কথাগুলো বলেছিলেন, রাজধানীর যাত্রাবাড়ী কনোপাড়ার মান্নান হাই স্কুল এন্ড কলেজের একজন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারি (আয়া) রহিমা বেগম ।

সোমবার (২০ জুলাই) শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারিদের নগদ অর্থ সহায়তা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।হেলদি হার্ট হ্যাপি লাইফ অর্গানাইজেশন (হেলো) পক্ষ থেকে এ সহায়তা করা হয়েছে।

হেলোর প্রধান পৃষ্ঠপোষক জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক বিশিষ্ট ক্লিনিক্যাল এবং ইন্টারভেনশনাল হৃদরোগ বিশেজ্ঞ ডা. মহসীন আহমেদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই কর্মসূচি বাস্তবায়িত হয়েছে। অর্থ সহায়তা প্রাপ্তিতে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচরীরা হলোর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এময় উপস্থিত ছিলেন, মান্নান হাই স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যাক্ষ শফিকুল ইসলাম, উপাধ্যক্ষ মো. ইকবাল, হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আরিফুর রহমান সজল, ডা. সেলিম মাহমুদ, হেলোর অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপক শাহাজাদা মোহাম্মদ সেলিমসহ আরও অনেক।

অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম বলেন, করোনার এই মহামারি সময়ে জনজীবনের স্বাভাবিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। নিম্ন ও মধ্যমায়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মকর্তা-কর্মচারিরা নানান সমস্যার মধ্যেদিয়ে দিন কাটাচ্ছে। এপরিস্থিতিতে সময় উপযোগী কর্মসূচি নিয়ে সমাজের দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে হেলদি হার্ট হ্যাপি লাইফ অর্গানাইজেশন (হেলো)।

সমাজের অন্য ব্যক্তি, বন্ধু গোষ্ঠী বা সামাজিক সংগঠন এগিয়ে আসলে করোনা প্রতিরোধ অনেক সহজ হয়ে আসবে। সাধারণ মানুষের কষ্ট কমবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

শীর্ষ সংবাদ/আরএইচ/

Print Friendly, PDF & Email