লক্ষ্মীপুরে অনলাইনে গরুর হাট শুরু করল প্রাণী সম্পদ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে এবারের কোরবানির পশুর হাটে সীমিত পরিসরে বেচা-বিক্রি হবে। মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে অনেকেই পশুর হাটেই যাবেন না। এতে কোরবানির গরু বিক্রি নিয়েও শঙ্কায় রয়েছেন জেলার খামারীরা। এমন উদ্ভুদ পরিস্থিতিতে কোরবানির পশু খামারি ও ক্রেতাদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে ফেসবুকে কোরবানি পশু বেচা-কিনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগ। ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে ‘অনলাইন গরুর হাট-লক্ষ্মীপুর’ নামে একটি ফেসবুক পেজ খোলা হয়েছে। এতে জেলার খামারিরা তাদের খামারের গরু বেচা-বিক্রি করতে পারবে ন্যায্য মূল্যে।
এদিকে অনলাইনের মাধ্যমে পশু বিক্রিতে উদ্ভুদ্ধ করতে বৃহস্পতিবার দুপুরে কোরবানী পশুর খামার পরিদর্শণে নামেন সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. যোবায়ের হোসেন।
প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. যোবায়ের হোসেন বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাস মানুষের জীবন-যাত্রার মান পাল্টে দিয়েছে। মানুষ এখন সচেতন হয়েছে। নিত্য দিনের কাজ-কর্ম এখন সট কাট করতে চাই। এজন্য অনেকই বেচে নিয়েছে অনলাইন প্লাটফর্ম। করোনা পরিস্থিতির কারণে এবারের কোরবানির হাটে ক্রেত আসতে অনাগ্রহী। তাই ক্রেতা-বিক্রেতাদের সুরক্ষায় সদর উপজেলা প্রাণী সম্পদ বিভাগ থেকে অনলাইন গরুর হাট-লক্ষ্মীপুর নামে ফেসবুক পেজটি খোলা হয়েছে।


তিনি আরো বলেন, খামারীরা তাদের গরুর কয়েকটি ছবি ও বিবরণ দিয়ে এ পেজে পোস্ট করবেন। জেলার ক্রেতাদের কাছে ছবি পৌছাতে খামারীকে বুস্টিং এর জন্য সামান্য অর্থ ব্যয় করতে হবে। পেজে দেখে ক্রেতা পচন্দের গরুটি ক্রয় করতে খামারীর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করবে। সঠিক দামে খামার থেকেই কোরবানির গরু নিয়ে যাবেন ক্রেতা। এতে তেমন একটা ঝামেলা হবে বলে না। ফেজবুক পেজটি নতুন খোলায় এবার একটু গ্রাহক পাওয়া যাবে। তবে আগামীতে সম্পন্ন ভাবে অনলাইনেই গরু বিক্রি করা যাবে। অনলাইনে গরু বিক্রিতে খামারীরা আগ্রহী বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email