অধিকাংশ মানুষেরই করোনা টিকা নেওয়ার প্রয়োজন হবে না

ঢাকা: মহামারি করোনার প্রতিষেধক নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে বিশ্বজুড়ে। এর মধ্যে অন্তত ১২টি ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল চলছে। তিনটি টিকার করোনার চিকিৎসায় আনুষ্ঠানিক প্রয়োগ বা টিকাগুলোর বাজারে আসা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। তবে এই দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে অক্সফোর্ডের টিকা!

এই প্রতিষ্ঠানটির মহামারি বিশেষজ্ঞ বলছেন, অধিকাংশ মানুষেরই করোনা টিকা নেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

এ বিষয়ে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মহামারি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপিকা সুনেত্রা গুপ্ত জানান, সাধারণ ফ্লু বা জ্বরের ক্ষেত্রে যতটা ঝুঁকি থাকে, করোনার ক্ষেত্রে একজন সম্পূর্ণ সুস্থ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষেরও ঠিক ততটাই ঝুঁকি রয়েছে। যারা বয়স্ক বা যাদের আগে থেকেই কোনও বড় রকমের স্বাস্থ্য সমস্যা রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রেই করোনার বিশেষ ঝুঁকি রয়েছে।

তিনি আরো জানান, যাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল, কেবলমাত্র তাদের ক্ষেত্রেই প্রতিষেধক করোনার ঝুঁকি কমানোর সহায়ক হতে পারে। তিনি বলেন, “তবে অধিকাংশ মানুষেরই ক্ষেত্রেই এই ভাইরাস নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত হওয়ার কোনও কারণ নেই।”

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এই মহামারি বিশেষজ্ঞ জানান, ইনফ্লুয়েঞ্জার চেয়েও এ ক্ষেত্রে মৃত্যুর হার কম। তাই প্রতিষেধক এসে গেলে খুব সহজেই করোনার মোকাবিলা করা সম্ভব হবে। অধ্যাপিকা গুপ্তর মতে, লকডাউন জারি করে করোনা সংক্রমণ অনেকটাই ঠেকানো সম্ভব হয়েছে। তবে লকডাউন কখনওই করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদী সমাধান হতে পারে না।

Print Friendly, PDF & Email