প্রকৌশলী দেলোয়ার হত্যা; মঙ্গলবার সারাদেশে কালো ব্যাচ ধারণ

ঢাকা:

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৭) নির্বাহী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনকে (৫০) হত্যার প্রতিবাদে ও জড়িতদের দ্রুত বিচারের দাবিতে আগামী মঙ্গলবার (২ জুন) সারাদেশে কালো ব্যাচ ধারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রকৌশলীদের সংগঠন ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)। শনিবার (৩০ মে) অনলাইনে আইইবি’র ৬৯৬ তম নির্বাহী কমিটির সভায় এ কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নেয় তারা। এসময় নিহত প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনের দুই সন্তানের লেখাপড়া নিবিগ্নে চালিয়ে নিতে মাসিক ৫ হাজার টাকা হারে প্রতিজনকে বৃত্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সভায় আইইবি’র প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর সভাপতিত্ব করেন। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী খন্দকার মনজুর মোর্শেদের সঞ্চালনায় সভায় নির্বাহী কমিটির সদস্যরা তাদের বক্তব্যে বলেন, প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনেকে হত্যা করা হয়েছে। এ হত্যার প্রতিবাদ হিসেবে সারাদেশে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) কেন্দ্র, উপ-কেন্দ্রসহ প্রকৌশল সংস্থা, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত প্রকৌশলীগণ আগামী (২ জুন) মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত কর্মস্থলে কালো ব্যাচ ধারণ করবেন। এছাড়া আইইবি’র সকল কেন্দ্র, উপকেন্দ্রসসহ সকল প্রকৌশলী সংস্থার সামনে প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনের হত্যার ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত বিচার চেয়ে ব্যানার টানানো হবে।

এর আগে আইইবি’র ৬৯৪ তম নির্বাহী কমিটির সভায় এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দ্রুত বিচার দাবি জানিয়েছিল আইইবি’র নির্বাহী কমিটির সদস্যরা।

এসময় নির্বাহী কমিটির সভায়, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) এর পক্ষ থেকে নিহত প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেনের দুই সন্তানের লেখাপড়া নিবিগ্নে চালিয়ে নিতে প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে প্রতিজনকে বৃত্তি দেয়া হবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

পরে ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতরসহ সংশ্লিষ্ট দফতর গুলোতে চিঠি দেয় প্রকৌশলীদের সংগঠন ‘আইইবি’।

প্রসঙ্গত, প্রকৌশলী দেলোয়ার মিরপুরের বাসা থেকে গত ১১ মে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কর্মস্থলে রওনা হন। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ হন। পরে উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের ৫ নম্বর ব্রিজের পশ্চিম দিকের ৮ নম্বর রোডে পাশের একটি জঙ্গল থেকে প্রকৌশলী দেলোয়ারের লাশ উদ্ধার করা পুলিশ। পরে এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী সেলিম হোসেন, গাড়িচালক হাবিব ও ভাড়াটে খুনি শাহিন হাওলাদারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

 

শীর্ষ সংবাদ /আরএইচ /

Print Friendly, PDF & Email