মা গার্মেন্টসে কাজে গেলেই চাচা এসে দরজা বন্ধ করে দিয়ে…

রাজধানীর তুরাগে আবারো ঘটলো শিশু ধর্ষণের ঘটনা।  ধর্ষক মোস্তফা (৩০) এর একদিন নয় দুদিন নয় পর পর চারদিন ধর্ষণের শিকার হয়েছে ছয় বছরের শিশুটি। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক মোস্তফাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয় স্থানিয়রা। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তুরাগ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘটনার সাথে জড়িত ধর্ষক ও ভিকটিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

বুধবার (২৭ মে) সকালে নলভোগ এলাকার আকরামের ভাড়াটিয়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

তুরাগ থানার এসআই নিয়াজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শিশু ধর্ষণের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তদন্ত করছে। অভিযুক্ত ধর্ষক জামালপুরের সরিষাবাড়ীর আমসারের ছেলে মোস্তফা। সে পেশায় একজন কসাই। ধর্ষণের ঘটনাটি তদন্ত চলছে। অভিযুক্ত ধর্ষক আটক রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানিয়রা জানান, তুরাগের নলভোগ এলাকার আকরামের ভাড়াটিয়া বাসায় বাবা মার সাথে থাকতো নির্যাতনের শিকার শিশুটি। শিশুটির মা গার্মেন্টসে কাজ করতে সকালে চলে গেলে শিশুটি ঘরে একাই থাকতো।  এই সুযোগে তার ঘরে চাচা সম্পর্কের এই  মোস্তফা প্রায়ই আসতো ও দরজা বন্ধ করে দিতো।  পর পর তিন দিন এমন ঘটলে সন্দেহ হয় আশেপাশের ভাড়াটিয়াদের।

এরপর আজ সকালে আবারো মোস্তফা শিশুটির ঘরে ঢুকলে পাশের ঘরের ভাড়াটিয়া ঘরের সিলিংয়ের উপর দিয়ে নিজ মুঠোফোনে ধর্ষণের ভিডিও ধারন করে ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় ধর্ষক মোস্তফাকে আটক করে।  পরে স্থানীয়রা তুরাগ থানা পুলিশকে খবর দিয়ে ধর্ষক মোস্তফাকে পুলিশে সোপর্দ করে।

Print Friendly, PDF & Email