ডিসিকে ফোন দিয়ে খাদ্য পেলেন অসহায় জহুরা

‘আকাশের চাঁদ যেন ঝলসানো রুটি। ক্ষুধার জ্বালায় পৃথিবী গদ্যময়’- পেটের খিদে নিয়ে এমন অসংখ্য কবিতার পঙ্ক্তিমালা রয়েছে। করোনার জাঁতাকলে পড়ে দেশে হাজারো লাখ পরিবার কর্মহীন হয়ে পড়েছে। হঠাৎ বলা নেই কথা নেই। করোনার মহামারির চাপে পড়ে সবাই গৃহবন্দি হয়ে পড়বে কে জানত?করোনা কী?  তার এত দাপট জানা নেই  মাধবপুর উপজেলার উঃ সুরমা গ্রামের    জহুরা বেগমের। খাদ্যের জন্য ছোটাছুটি করছে এদিক সেদিক। যাচ্ছে চেয়ারম্যান-মেম্বারের কাছে। তবু মিলছেনা খাবার। তবে লোক মুখে শুনেছেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান একজন দয়ালু লোক ফোন করলে খাদ্যসামগ্রী দেন। লোকজনের কাছ থেকে সংগ্রহ করলেন ডিসির ফোন।  অবশেষে ১৮ এপ্রিল বিকেলে ভয়ে ভয়ে ডিসিকে ফোন দেন জহুরা বেগম। ফোন দিয়েই ক্ষুধার যন্ত্রণায় হাউমাউ করে কান্না শুরু করেন। মানবিক ডিসি বুঝলেন তার কষ্টের কথা।

ঘণ্টাখানের মধ্যেই মোবাইল ফোনে ডাক পড়ে জহুরার। ডিসির নির্দেশে মাধবপুর উপজেলা অফিসের লোক তার বাড়িতে খাদ্যের বস্তা  নিয়ে আসেন। জহুরা বলেন জীবনে কল্পনাও করতে পারিনি ফোন দিলে খাদ্য পাবেন।

Print Friendly, PDF & Email