করোনায় আরও ৫০ কোটি মানুষ দরিদ্র হবে: জাতিসংঘ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্ব অর্থনীতিতে যে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে তাতে করে গোটা বিশ্বে দরিদ্র মানুষের তালিকায় যুক্ত হবে আরও ৫০ কোটি মানুষের নাম। মহামারি এই ভাইরাসের অর্থনৈতিক ও মানবিক ক্ষতি মূল্যায়নের মাধ্যমে গবেষণা করে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছে জাতিসংঘ।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী গত ৩০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো বিশ্বে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বাড়বে। শুধু দরিদ্রের সংখ্যা বাড়বেই নয় অর্ধকোটি মানুষের জীবনকে অনাকাঙ্খিত এক অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দেবে মহামারি এই করোনাভাইরাস।

আগামী সপ্তাহে বিশ্বব্যাংক, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ও জি-২০ এর অর্থমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের প্রক্কালে এমন হিসাব দিল জাতিসংঘ। জাতিসংঘ বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে এই গবেষণাটি করেছে লন্ডনের কিংস কলেজ এবয় অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউভার্সিটির বিশেষজ্ঞরা।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্রিস্টোফার হোয় এ সম্পর্কে আরও বলছেন, ‘মহামারি করোনার কারণে বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় যে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে এর প্রভাবে বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক বিপর্যয় তার চেয়েও অনেক বেশি মারাত্মক হবে।’

জাতিসংঘের এই প্রতিবেদন অনুযায়ী করোনার কারণে বিশ্বজুড়ে ৪০ থেকে ৬০ কোটি মানুষ দরিদ্র হয়ে পড়বেন। ফলে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে জাতিসংঘ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার আওতায় দারিদ্র্যের হার কমিয়ে আনার যে লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে তা মারাত্মক এক চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে।

এছাড়া মহামারি চলাকালীন বিশ্বের ৭৮০ কোটি মানুষের অর্ধেকই দরিদ্রসীমার মধ্যে জীবনযাপন করবেন। নতুন করে যে মানুষগুলো দরিদ্র হবেন তার ৪০ শতাংশ হবে পূর্ব এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে। এছাড়া এর প্রায় এক-তৃতীয়াংশ হবে দক্ষিণ এশিয়া এবং সাব-সাহারা অঞ্চলে।

Print Friendly, PDF & Email