লক্ষ্মীপুরের মেঘনা নদীতে মাছ ধরায় ২২ জেলে আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক:
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে মেঘনা নদীতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ শিকারের দায়ে ২২ জেলেকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৩ জনের কাছ থেকে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা আদায় ও ৯ জনকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। এছাড়া রামগতিতে পৃথক অভিযান চালিয়ে ৪ হাজার মিটার অবৈধ জাল জব্দ করে পুড়িয়ে বিনষ্ট করে মৎস্য বিভাগ।

মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) রাতে কমলনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মোবারক হোসেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এ জরিমানা করেন। এর আগে মৎস্য বিভাগ দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে উপজেলার মেঘনা নদীর বিভিন্ন এলাকায় ২২ জেলেকে আটক করে।

অর্থ দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মাহে আলম, মো. মিছির, রুবেল, মহিন উদ্দিন, মনির, সবুজ, মো. লিটন, রুবেল হোসেন, হারুনুর রশিদ, রাসেল, আবদুল, বাবুল হোসেন ও রাকিব। তারা সদর উপজেলার চররমনি মোহন ও কমলনগরের চরকালকিনি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, জাটকা রক্ষায় নদীতে সরকারি নিষেধাজ্ঞায় মৎস্য বিভাগ মঙ্গলবার নিয়মিত টহলে যায়। এসময় আটক জেলেরা নদীর বিভিন্ন স্থানে ইলিশ শিকার করছিল। এ ঘটনায় ২২ জেলেকে আটক করা হয়। ব্যবহৃত ৩টি নৌকা জব্দ করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১৩ জেলেকে ৩ হাজার টাকা করে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অপ্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ায় ৯ জনকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

কমলনগর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আবদুল কুদ্দুস বলেন, সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জেলেরা নদীতে মাছ শিকারে যাচ্ছে। নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে অভিযান চালালে ওই জেলেদের আটক করি। পরে ভ্রাম্যামাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের অর্থদণ্ড ও মুচলেকা নেয়া হয়।

এদিকে মাছ ধরার দায়ে রামগতি উপজেলার মেঘনা নদীর রামগতি এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে ৪ হাজার মিটার অবৈধ জাল জব্দ করা হয়। পরে মঙ্গলবার রাতে আলেকজান্ডার সেন্টার খাল এলাকায় জালগুলো পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে। জালগুলোর বাজারমূল্য আনুমানিক ২ লাখ টাকা। রামগতি উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা কামাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email