লক্ষ্মীপুরে চলাচলের রাস্তায় শৌচাগার : অপসারণ করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক :
প্রতিবেশীদের সাথে ক্ষিপ্ত হয়ে চলাচলের রাস্তার ওপর শৌচাগার বসিয়েছেন হাজেরা বেগম নামে এক নারী। এতে ১০ পরিবারের প্রায় ৩০-৩৫ জন লোকের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন তারা। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গিয়ে চলাচলের পথটি পুনরুদ্ধার করে দেন।

সোমবার সকালে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের আবিরনগর গ্রামের মিয়াগো বাগবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, আবিরনগর গ্রামের মিয়াগো বাগবাড়ির ১০ পরিবারের লোকজন প্রায় ৪০ বছর যাবৎ এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতো। সস্প্রতি চলাচলের রাস্তা নিয়ে প্রতিবেশীদের সাথে হাজেরা বেগমের বিরোধ দেখা দেয়। স্থানীয়ভাবে শালিশি বৈঠকে চলাচলের পথ বাবদ ওই নারীর সাথে ৩০ হাজার টাকার মিমাংস্যা হয়। পথটি ব্যবহারকৃত পরিবারগুলো ২৮ হাজার টাকা স্থানীয় সালিশদারদের কাছে জমা দেন। দুই হাজার টাকা কম দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে যান হাজেরা বেগম। সে ওই রাস্তার ওপর শৌচাগার নির্মাণ করে সেটি বন্ধ করে দেয়। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসন মশু গিয়ে সেটি অপসারণ করে চলাচলের রাস্তাটি খুলে দেন।

হাজেরা বেগমের ছেলে রিয়াজ বলেন, পূর্বে রাস্তাটি দিয়ে লোকজন চলাচল করতো। এখন সেটি আমরা কিনে নিই। তাই রাস্তাটি বন্ধ করে দিয়েছি।

এ ব্যাপারে লাহারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মশু বলেন, রাস্তটি দিয়ে দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ লোকজন যাতায়াত করতো। বন্ধ করে দেওয়ায় ১০ পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। বিষয়টি অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। তাদের চলাচলের বিকল্প কনো পথ নেই। তাই চলাচলের রাস্তাটি পুনরুদ্ধার করে দিই। দেশের করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্থানীয়ভাবে বসে বিষয়টি মিমাংস্যা করা হবে।

এদিকে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্থানীয় বাসিন্দাদের সচতেন করেন ইউপি চেয়ারম্যান।

Print Friendly, PDF & Email