মৃত ব্যক্তির দাফনে বাধা এলাকাবাসীর, পুলিশের উপস্থিতিতে দাফন

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় ‘করোনাভাইরাসে মৃত্যু’ সন্দেহে এক ব্যক্তির মরদেহ দাফনে বাধা দিয়েছে এলাকাবাসী।

সোমবার (৩০ মার্চ) সকালে উপজেলার যোগীপাড়া ইউনিয়নের বাজেকোলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়নি; স্বাস্থ্য বিভাগ এমন তথ্য নিশ্চিত করার পর ওই দিন দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে মরদেহ দাফন করা হয়।

জানা গেছে, রোববার রাতে বাজেকোলা গ্রামের আবদুল মান্নান (৪৬) নিজ বাড়িতে মারা যান। পরদিন সকালে পারিবারিক কবরস্থানে মরদেহ দাফনের প্রস্তুতি চলছিল। আবদুল মান্নান হঠাৎ মারা যাওয়ায় এলাকার লোকজনের সন্দেহ হয়। তার মৃত্যু করোনায় হয়ে থাকতে পারে এমন কথা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মরদেহ দাফনে আপত্তি জানায় এলাকাবাসী।

খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি দল আবদুল মান্নানের বাড়িতে যায়। পরে স্বাস্থ্য বিভাগ নিশ্চিত করে ওই ব্যক্তি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এই খবরে শান্ত হয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে সোমবার দুপুর ১টার দিকে আবদুল মান্নানের মরদেহ দাফন করা হয়।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল বলেন, হঠাৎ মারা যাওয়ায় লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তবে আবদুল মান্নান করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন না। বেশি জমায়েত যাতে না হয়, এজন্য পুলিশের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছিল। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে তাকে দাফন করা হয়েছে।

মৃতের স্বজনরা জানান, আবদুল মান্নান দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন। জ্বর, সর্দি-কাশি বা করোনা আক্রান্তের কোনো উপসর্গ ছিল না তার।

বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা গোলাম রাব্বানী বলেন, মৃতের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে এবং উপসর্গ দেখে মনে হয়েছে তিনি হৃদরোগে মারা গেছেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণের উপসর্গ ছিল না তার। তিনি বিদেশফেরত কোনো ব্যক্তির সংস্পর্শেও যাননি।

Print Friendly, PDF & Email