নয়া ভূমিকায় হিথার নাইট

জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপিয়ে বহুবার দেশকে গর্বিত করেছেন। দলকে নেতৃত্ব দিয়ে ম্যাচ জিতিয়েছেন। এবার সংকটজনক পরিস্থিতিতে সরাসরি নিজেকে দেশের জন্য নিমজ্জিত করলেন ইংল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিথার নাইট। জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবায় যোগ দিলেন তিনি।ব্রিটেনে ভয়ংকর চেহারা নিয়েছে করোনা।  লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। প্রায় ১৫ হাজার মানুষ এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত। চারিদিকে যেন শ্মশানের নীরবতা। এমন পরিস্থিতিতে আর নিজেকে বাড়িতে আটকে রাখতে পারেননি নাইট। জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবায় ভলান্টিয়ার হিসেবে যোগ দিয়েছেন তিনি। সঠিক জায়গায় ওষুধ সঠিকভাবে পৌঁছে যাচ্ছে কি না, তা দেখার দায়িত্ব এখন নাইটের কাঁধে। সেই সঙ্গে দেশবাসীকে এই মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উদ্বুদ্ধ করছেন তিনি। প্রত্যেককে সচেতনতার বার্তাও দিচ্ছেন। মানুষের সঙ্গে কথা বলে সেল্‌ফ আইসোলেশনের প্রয়োজনীয়তাও বোঝাচ্ছেন।

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে তিনি লেখেন, “এখন আমার হাতে অনেক সময়। তাই ভাবলাম এই সময় দেশের যতটা সাহায্য করতে পারি, ততই ভাল। তাই জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবায় ভলান্টিয়ার হিসেবে যোগ দিয়েছি। আমার বাবা-মা আর ভাই সকলেই চিকিৎসক। আমার অনেক বন্ধুও -এ কর্মরত।  তাই খুব ভালভাবেই জানি, ওরা এই মুহূর্তে কতটা পরিশ্রম করছে। সবার জন্যই সময়টা খুব কঠিন।”করোনা মোকাবিলায় একজোট হয়ে লড়ছে গোটা বিশ্ব। অনেকেই আর্থিক অনুদান দিয়ে সরকারের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। তবে নাইটের এই পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে অনুপ্রেরণা জোগাচ্ছে বাকিদের। গত বুধবার ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য পরিষেবার তরফে ভলান্টিয়ার নিয়োগ করার কথা ঘোষণা করা হয়। তারপরই বহু নাগরিক দেশসেবার কাজে এগিয়ে আসে। নাইটও তখন সিদ্ধান্ত নেন বাবা-মা, ভাইয়ের মতো তিনিও এই কঠিন পরিস্থিতিতে বাড়িতে না বসে সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করবেন।

Print Friendly, PDF & Email