লক্ষ্মীপুরে হতদরিদ্রদের জন্য ৬শ’ মেট্রিক টন চালসহ ত্রাণ সামগ্রী বরাদ্দ

রাকিব হোসেন আপ্র :
লক্ষ্মীপুরে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে সরকারি নির্দেশনা মেনে বাড়িতে অবস্থান করায় নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে। হতদরিদ্র পরিবার গুলোর খাদ্যসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতেই সরকারের এমন কর্মসূচি বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিরা।

প্রাথমিকভাবে প্রতিটি পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী হিসেবে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি মসুর ডাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি পেঁয়াজ, ৫০০ গ্রাম সরিষার তেল ও একটি সাবান দেওয়া হচ্ছে। জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে এসব সামগ্রী প্যাকিং করা হয়। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে দরিদ্র পরিবার গুলোর তালিকা অনুযায়ী ঘরে ঘরে ত্রাণ সামগ্রী গুলো পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলায় করোনাভাইরাস মোকাবেলায় মানবিক সহায়তা হিসেবে প্রায় ৬০০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। এরমধ্যে ১০০ মেট্রিক টন চাল ও ১০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে দুর্যোগ ও ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর। প্রয়োজনে পর্যায়ক্রমে বাকি ৫০০ মেট্রিক টন চাল ও ৭ লাখ ৪৯ হাজার টাকা জেলা প্রশাসকের ত্রাণ তহবিল থেকে দেয়া হবে। ইতোমধ্যে জেলার ৫টি উপজেলার সবকটি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় ত্রাণের ৭২ মেট্রিক টন চাল ও ৮ লাখ ২০ হাজার টাকার নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

এদিকে রবিবার দুপুরে জেলা কালেক্টরেট ভবন প্রাঙ্গণে ভিক্ষুক, দিনমজুর ও রিকশাচালকসহ নিম্নআয়ের শতাধিক মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল। এই মানুষ গুলো অভাবের তাড়নায় রাস্তায় বের হয়েছিল। পরে জেলা প্রশাসক তাদেরকে ডেকে এনে ত্রাণ সামগ্রী তুলে দিয়ে পুনরায় বাড়ি থেকে বের না হওয়ার আহ্বান জানান।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভূঁইয়া, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাহীদুল ইসলাম, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মাহফুজুর রহমান, এনডিসি বনি আমিন প্রমুখ।

জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় লক্ষ্মীপুর জেলার সার্বিক পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত ভালো রয়েছে। এই দুর্যোগে মানবিক সহায়তা হিসেবে জেলার হতদরিদ্র পরিবার গুলোর মাঝে ত্রাণ সামগ্রী যথাযথভাবে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

জেলাবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে জেলা প্রশাসক আরও বলেন, চলমান সংকট কাটিয়ে ওঠা পর্যন্ত ঘরে থাকুন। সামাজিক ও নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সরকারের নির্দেশনা মেনে সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় এই সংকট মোকাবেলা করা সম্ভব হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
উল্লেখ্য, করোনা মোকাবেলায় লক্ষ্মীপুরে ব্যক্তিগত উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন- সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ উদ্দিন টিপু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল, রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনতাসির জাহান, রায়পুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মারুফ বিন জাকারিয়াসহ রাজনৈতিক নেতা ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অনেকেই।

Print Friendly, PDF & Email