অনিয়েমে জড়িত ‘শ্রেষ্ঠ পাসপোর্ট কর্মকর্তা’

নাগরিককে পাসপোর্ট দেওয়ায় পাসপোর্ট অধিদফতরের সহকারী পরিচালক আবজাউল আলমসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার বিকালে মামলাটি করেন দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী। মামলা নম্বর-৪।
ভারতীয় নাগরিক হাফিজ আহমেদ ভুয়া জন্মসনদ ব্যবহার করে রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন। এরপর পুলিশ ভেরিফিকেশনে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে রিপোর্ট দেওয়ার পরও পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি চক্রের যোগসাজশে তাকে বাংলাদেশি পাসপোর্ট দেওয়া হয়। দুদকের উপ-পরিচালক আবু বকর সিদ্দিকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের টিম এ ঘটনার অনুসন্ধান শুরু করেন। অনুসন্ধানে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় বুধবার কমিশন মামলার অনুমোদন দেয়। বৃহস্পতিবার বিকালে দুদকের রাজশাহী কার্যালয়ে মামলাটি করা হয়।
দুদকের অনুসন্ধানে উঠে আসে এ দুর্নীতির সঙ্গে রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট অফিসের সাবেক সহকারী পরিচালক আবজাউল আলমসহ আটজন জড়িত। অন্যরা হলেন- ভারতীয় নাগরিক হাফিজ আহমেদ, রাজশাহী পাসপোর্ট অফিসের কর্মচারী রঞ্জু লাল সরকার, হুমায়ুন কবির, দেলোয়ার হোসেন, আলমাস উদ্দিন, ইব্রাহিম হোসেন, আবদুল ওয়াদুদ। আবজাউল আলম বর্তমানে বগুড়া পাসপোর্ট অফিসে একই পদে কর্মরত আছেন।
২০১৭ সালে শ্রেষ্ঠ কর্মকর্তা হিসেবে পুরস্কার পেয়েছিলেন রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আবজাউল আলম। ওই বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহ-২০১৭ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল তাকে পুরস্কৃত করেন।
এ বিষয়ে আবজাউল আলমের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য বগুড়া পাসপোর্ট অফিসের সরকারি মোবাইল ফোনে চেষ্টা করা হলে জানানো হয়- তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। তবে তার ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।
Print Friendly, PDF & Email