কোচ হিসাবে মাশরাফির প্রথম পছন্দ হাথুরুসিংহে

লঙ্কান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে কোচ হিসাবে প্রথম পছন্দ মাশরাফি বিন মর্তুজার। বাংলাদেশ দলের অধিনায়কত্ব পাবার পর সবচেয়ে বেশি সময় কোচ হিসাবে পেয়েছেন হাথুরুকে।

বাংলাদেশ দল একটা সময়ে সাফল্যের ভেলায় ভেসেছে এই দুজনের যুগলবন্দীতেই। টি-টোয়েন্টি থেকে মাশরাফির অবসরের পেছনে হাথুরুসিংহের দায় আছে কিনা তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বিস্তর। তবে মাশরাফি জানালেন কোচ হিসাবে হাথুরুসিংহেকেই উপরে রাখেন তিনি। অধিনায়ক হিসাবে বিদায়ী ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে কোচদের মুল্যায়ন করতে যেয়ে এমনটা বলেন মাশরাফি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ দলের যারা কোচ ছিলেন প্রত্যেকেরই একটা সামর্থ্য ছিল। তারপরেও বিশেষত্ব তো থাকে। সেদিক থেকে আমি চন্ডিকা হাথুরুসিংহেকে অবশ্যই প্রথমে রাখবো। অনেকে যদিও মনে করতে পারে হাথুরুসিংহের কারণে আমার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার শেষ হয়েছে! আসলে তা না। হাথুরুসিংহের কথা এইজন্য বলছি, কারণ হাথুরুসিংহে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে একটা ধাপে নিয়ে আসছে।

কেননা চন্ডিকা হাথুরুসিংহে কোচ থাকাকালীন সময়ে বাংলাদেশ দল ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলেছে। এরপর ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে হারিয়েছে ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকাকে। প্রথমবারের মতো টেস্টে হারিয়েছে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াকে। এরপর ২০১৭ সালে বাংলাদেশ খেলেছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে। এশিয়া কাপের ফাইনালেও উঠেছে। ট্যাকটিকাল জায়গাতে হাথুরুসিংহের প্রশংসা প্রাপ্যই ছিল।

এছাড়া আলাদা করে কোচ জেমি সিডন্সের কথাও বলেন মাশরাফি। তিনি বলেন, জিমি সিডন্সের কথা আমি সবসময়ই বলে এসেছি। আজ সাকিব, তামিম, মুশফিক, রিয়াদদের তৈরি হবার পেছনে তার অবদান অনেক। শুধু আমি না, এটা তো ওরাও বলে।

এখন বাংলাদেশ দলের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করার আহ্বান মাশরাফির

সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, যে কোচ আসে যদি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তাহলে আমার মনে হয় এটা বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য ভাল হবে না। হাথুরুসিংহে আমাদের ক্রিকেটকে যে জায়গায় রেখে গেছে সেখান থেকে আমরা কোন পর্যায়ে যেতে পারি তা দেখার বিষয়। ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত একটা ধাপ ছিল। এখন ছয় মাস, এক বছর পরীক্ষার সময় না। এরপর নতুন আরেকজন এসে আবার পরীক্ষা নিরীক্ষা করবে। বাংলাদেশের ক্রিকেট ওই জায়গায় নেই।

Print Friendly, PDF & Email