ক্ষিপ্ত শাবনূর, বিচ্ছেদ পরবর্তী পরিকল্পণার কথা জানালেন!

দীর্ঘ সাত বছরের সংসার ভাঙছে চিত্রনায়িকা শাবনূরের। গত ২৬ জানুয়ারি স্বামী অনীকের কাছে বিচ্ছেদ চেয়ে নোটিশ পাঠিয়েছেন তিনি। বিচ্ছেদের পর নতুন করে ঘর বাঁধার স্বপ্ন আছে কিনা জানতে চাইলে শাবনূর বললেন আপাতত সন্তান নিয়েই ভাবনা তার।

২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর অনিক মাহমুদকে বিয়ে করেন শাবনূর। এরপর ২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর তাদের ঘরে পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। স্ত্রী ও সন্তানের কোন দায়িত্ব নেয়নি অনিক। অস্ট্রেলিয়া থেকে ফোনে শাবনূর বলেছিলেন, অনিক আমার আর সন্তানের কোন দায়িত্বই নেয়নি। কোন খোঁজও নেয়না। তাহলে তার সঙ্গে কিসের সংসার করবো?

শুক্রবার (৬ মার্চ) বিচ্ছেদ পরবর্তী পরিকল্পণার কথা জানতে চাইলে শাবনূর বলেন, ‘আমি এখন সন্তান নিয়েই ভাবছি। বাচ্চাকে আঁকড়ে ধরে বেঁচে আছি। ওকে গড়ে তোলার কাজে মনোযোগী হব। মানুষের ভাগ্য তো সব সময় এক রকম হয় না। সংসার হয়নি, হয়তো এটা আমার ভাগ্যে ছিল না। তাই বলে যে আবার বিয়ে করব, এমনটা ভাবাও এই মুহূর্তে ঠিক মনে হচ্ছে না। আমার ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে একেবারেই কথা বলতে চাইছি না আর।’

এদিকে গোপনে ইস্যু করা ডিভোর্সের নোটিশ ফাঁস হয়ে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত শাবনূর। তিনি বলেন,  ‘আমার আইনজীবী এটা কোনোভাবেই করতে পারেন না। আমি তালাকের যে নোটিশ ইস্যু করেছি, অনুমতি ছাড়া আইনজীবী এটা কোনো অবস্থায় জনসমক্ষে প্রকাশ করতে পারেন না।’ এদিকে আইনজীবী কাওসার আহমেদের দাবি, তালাকের নোটিশ তাঁর মাধ্যমে জনসমক্ষে প্রকাশিত হয়নি। তিনি কাউকে শাবনূরের তালাকের বিষয়ে কোনো তথ্য দেননি।

Print Friendly, PDF & Email