লক্ষ্মীপুরে সাবেক ছাত্রনেতাদের মশাল মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নোয়াখালী বেগমগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যার প্রতিবাদে মশাল মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ  করেছে লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা কর্মীরা।

আজ (৩ মার্চ) মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে উত্তর তেমুহনী থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হয় ।

লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুল ইসলাম রকির নেতৃত্বে এসময়ে মশাল মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে  উপস্থিত ছিলেন, লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি চৌধূরী মাহমুদুুুুন্নবী সোহেল, সাবেক সহ সভাপতি আশরাফুল আলম, রাকিব পাটওয়ারী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নেওয়াজ হীরা, সাবেক ছাত্র নেতা রনি পাটোয়ারী, হৃদয় হোসেন রুবেল, জেলা ছাত্রলীগের বর্তমান সহ-সভাপতি রেজাউল করিম পারভেজ, শাহাদাত হোসেন, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক জাহিদ হাসান শুভ প্রমুখ।

উল্লেখ্য. রোববার রাতে নোয়াখালী-লক্ষ্মীপুর সড়কের পলোয়ানের পুল বাজারের একটি চায়ের দোকানে আড্ডা দিচ্ছিলো ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। রাত ৮টার দিকে হঠাৎ শিবিরের কয়েকজন এসে এলোপাতাড়ি গুলি করে এবং দোকানে ঢুকে ছাত্রলীগের কর্মীদের কুপিয়ে আহত করে। এদের মধ্যে রাকিব ও হাবিবের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতে রাকিবকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং হাবিবকে ঢাকা হেলথ কেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাকিবের কিডনি, লিভার ও পাকস্থলিতে গুলি লেগেছিল। পরে সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাকিবের মৃত্যু হয়।

এদিকে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যা মামলার আসামি মো. নজরুল ইসলাম ওরফে কানা নজরুল (২৫) নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার  ভোরে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আমানুল্যাপুর ইউনিয়নের জনকল্যাণ হাই স্কুল মাঠে এ ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, নিহত নজরুল শিবিরের কর্মী, সে রাকিব হত্যা মামলার ২ নম্বর আসামি ছিলো। এছাড়া তার বিরুদ্ধে আরও দু’টি মামলা রয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, একটি ধামা, তিনটি ছোরা ও পাঁচটি কার্তুজের খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ‘বন্দুক যুদ্ধে’ পুলিশের ৬ সদস্য আহত হয়।

Print Friendly, PDF & Email