কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডসের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেলেন তামিম

আন্তর্জাতিক ম্যাচে ক্যারিয়ারের ১২তম সেঞ্চুরির সুবাদে ৭ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করলেন বাংলাদেশের হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। দীর্ঘদিন ধরে রান খরায় থাকা তামিম ইকবাল সমালোচকদের জবাব দিয়ে আবার নিজের চিরচেনা রূপে ফিরলেন। নিজের ২০৬ তম ম্যাচ খেলার মাধ্যমে ১২টি সেঞ্চুরি ও ৪৭টি অর্ধশতক পূর্ণ করেন তিনি।

সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির রেকর্ডটিও এখন তামিমের ঝুলিতে। এরপর ঝড় তোলেন তামিম। পূর্ণ করেন ১৫০ রান। তবে ব্যক্তিগত ১৫৮ রান করে ফিরে যান তিনি। যা ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশি কোন ব্যাটসম্যানের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান। এতদিন পর্যন্ত একদিনের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহের রেকর্ডটি ছিল তামিমের, এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৫৪ রান। এবার সেটা ছাড়িয়ে ১৫৮ রান করে আউট হলেন এই ওপেনার।

 

এদিকে, ওয়ানডে ক্যারিয়ারের রেকর্ড গড়া ইনিংস খেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান ভিভ রিচার্ডসকে ছাড়িয়ে গেলেন তামিম ইকবাল। মঙ্গলবার (৩ মার্চ) জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৩৬ বলে ২০টি চার ও ৩ ছক্কায় দেশের হয়ে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৫৮ রানের ইনিংস খেলেন তামিম। এই ইনিংস খেলার পথে তামিম নিজেই নিজেকে ছাড়িয়ে যান।

 

এর আগে ২০০৯ সালে এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই বুলাওয়ে স্টেডিয়ামে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ১৫৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তামিম। মঙ্গলবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে শিরোপা নিশ্চিত করতে নেমে ১৫৮ রানের ইনিংস খেলেন তামিম। আর এই ইনিংস খেলার পথে ক্যারিবীয় সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান ভিভ রিচার্ডসকে ছাড়িয়ে যান বাংলাদেশ সেরা এ ওপেনার।

 

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভিভ রিচার্ডস হাঁকিয়েছেন ২১টি সেঞ্চুরি। তামিম হাঁকালেন সবমিলে ২২টি সেঞ্চুরি। টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি মিলে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ২১টি সেঞ্চুরি করা তামিম নিঃশ্বাস ফেলছিলেন মাইক হাসি ও ফাফ ডু প্লেসিসের ঘাড়ে। এদিন সেঞ্চুরি করে তাদের সমান ২২টি সেঞ্চুরির মালিক হয়ে যান তামিম। টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলে ৬৬৪ ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ১০০টি সেঞ্চুরি করেছেন ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার।

 

৫৬০ ম্যাচে খেলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭১টি সেঞ্চুরি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদিন্ত রিকি পন্টিং। মাত্র ৪১৬ ম্যাচ খেলে ইতিমধ্যে ৭০টি সেঞ্চুরি করেছেন ভারতের বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তিনি আর মাত্র একটি সেঞ্চুরি করলেই রিকি পন্টিংকে ছাড়িয়ে দ্বিতীয় পজিশনে উঠে আসবেন বিরাট। আর সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলতে নেমেই সাকিবকে স্পর্শ করলেন তামিম। এই ম্যাচ আগ পর্যন্ত তামিম খেলেছিলেন ২০৫টি ম্যাচ। সাকিবের ২০৬টি আজই ছুঁলেন।

Print Friendly, PDF & Email