লক্ষ্মীপুরে উৎসবমুখর পরিবেশে জাতীয় বীমা দিবস পালিত

রাকিব হোসেন আপ্র : প্রথম বারের মতো জাতীয় বীমা দিবস উদযাপন উপলক্ষে লক্ষ্মীপুরে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। রবিবার (১ মার্চ) সকালে জেলা প্রশাসন আয়োজিত এসব কর্মসূচিতে বিভিন্ন বীমা কোম্পানির কর্মকর্তা ও কর্মীদের স্বতস্ফুর্ত উপস্থিতি উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি করে। দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল, “বীমা দিবসে শপথ করি, উন্নত দেশ গড়ি”।

জাতীয় বীমা দিবস উপলক্ষে সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা কালেক্টরেট ভবন প্রাঙ্গণ থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন বীমা কোম্পানির কর্মকর্তা ও কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। পরে কালেক্টরেট ভবনের সামনের ড্রীলসেডে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল। এসময় প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড লক্ষ্মীপুর শাখার জেনারেল ম্যানেজার আবু তালেব হালান, পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালক সিহাব উদ্দিন ও ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের জেলা ইনচার্জ মোহাম্মদ ইউসূফ সহ প্রায় ১৫টি বীমা কোম্পানির কর্মকর্তা ও কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় বীমা দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল বলেন, ‘বীমা দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। যথাযথ পরিকল্পনা ও কার্যক্রম বাস্তবায়নের মাধ্যমে এ খাতকে সমৃদ্ধ করতে হবে। তবে এর আগে বীমার প্রতি মানুষের আস্থা বাড়াতে হবে। এজন্য বীমা কর্মীদের সঠিক প্রশিক্ষণ, বীমা কোম্পানি গুলোর স্বল্প মেয়াদী বীমা প্রকল্প প্রণয়ন এবং যথাযথ গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করা প্রয়োজন ‘

‘বীমা কর্মীদের অযোগ্যতা, দীর্ঘ মেয়াদী বীমা প্রকল্প, বীমার মূল্য পরিশোধে জটিলতা ও গ্রাহক হয়রানিসহ বিভিন্ন কারণে বীমার প্রতি মানুষের আগ্রহ প্রত্যাশিতভাবে বাড়ছে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সভা শেষে বীমা প্রদর্শনী মেলার উদ্বোধন করার পর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পালসহ অন্যান্য অতিথিরা মেলার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।

এদিকে ১ মার্চ জাতীয় বীমা দিবস ঘোষণা এবং সরকারিভাবে এই প্রথমবারের মতো জাতীয় বীমা দিবস উদযাপন করায় বীমা সংশ্লিষ্টরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

 

শীর্ষ সংবাদ/আপ্র

Print Friendly, PDF & Email