সাক্ষরতা পাবেন ২১ লাখ নিরক্ষর

 মুজিববর্ষে মৌলিক সাক্ষরতা পাবেন ২১ লাখ নিরক্ষর নারী ও পুরুষ। এ লক্ষ্যে আগামী মার্চ মাস থেকে ৬০ জেলার ১১৪টি উপজেলার নিরক্ষর মানুষকে মৌলিক সাক্ষরতা ও জীবন দক্ষতা সম্পর্কে জ্ঞান দিতে কর্মসূচি শুরু হবে।

এ বিষয়ে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) বলেন, ১১৪টি উপজেলায় ২১ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা দিতে মাঠ পর্যায়ের কর্মসূচি বাস্তবায়নে ১১৪টি বেসরকারি সংস্থা (এনজিও) কাজ করবে। এনজিওগুলোর মাধ্যমে কর্ম এলাকায় বেজলাইন সার্ভের মাধ্যমে ১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী নিরক্ষরদের তালিকা করা হয়েছে।

শিখন কেন্দ্রের স্থান নির্বাচন করে শিক্ষক ও সুপারভাইজার নিয়োগ করে তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজ প্রায় শেষ। মুজিববর্ষ শুরু হলেই এ কর্মসূচি শুরু হবে। ছয় মাসের মধ্যে মৌলিক সাক্ষরতা পাবেন ২১ লাখ নিরক্ষর মানুষ। এনজিওগুলোর তৈরি তালিকা ঠিক আছে কি না-তা যাচাইয়ে সংশ্লিষ্ট ৬০টি জেলার জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া সংশ্লিষ্ট জেলাগুলোর উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালকদের তালিকাসহ প্রতিবেদন পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্প ৬৪ জেলার দ্বিতীয় পর্যায়ের কর্মসূচি মাঠপর্যায়ে বাস্তবায়নে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়। প্রকল্পের আওতায় দেশের ৬৪ জেলায় নির্বাচিত ২৫০টি উপজেলার ১৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সী ৪৫ লাখ নিরক্ষরকে সাক্ষরতা জ্ঞান দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। প্রথম পর্যায়ে ১৩৪টি উপজেলায় শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে ২৩ লাখ ৫৯ হাজার ৪৪১ জন নিরক্ষরকে সাক্ষরতা দেওয়া হয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ২৩ লাখ নারী-পুরুষকে সাক্ষরতা দেওয়া হবে।

ব্যুরোর সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) বলেন, এ প্রকল্পে শুধু নাম স্বাক্ষর নয়, লিখতে, পড়তে ও সাধারণ যোগ, বিয়োগ, গুণ ও ভাগ করাসহ হিসাব শেখানো হয়। সরকারের টার্গেট ছিল ৪৫ লাখ নিরক্ষরকে মৌলিক স্বাক্ষর জ্ঞান দেওয়া। এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ের কাজ শেষ। মুজিববর্ষ উপলক্ষে দ্বিতীয় পর্যায়ে ছয় মাসে ২১ লাখ নারী-পুরুষকে স্বাক্ষর জ্ঞান দেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email