লক্ষ্মীপুরে পড়ালেখা বন্ধ করে স্বপ্ন পূরণের চেষ্টায় আখিঁ

নিজস্ব প্রতিবেদক :

যে বয়সে লেখাপড়ার পাশাপাশি তথ্য-প্রযুক্তি মধ্যমে পৃথিবীর-ইতিহাস ও নানা গল্প নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা আখিঁর। অথচ সে বয়সে আখিঁর চিরসঙ্গী ঘর। পড়ালেখা ছেড়ে বাবা-মা’র সংসারের হাল ধরতে শিখে নিয়েছেন দর্জির কাজ ।

তারা যে ঘরে বসবাস করেন সেই ঘরটি জরাজীর্ণ। বসতভিটা ছাড়া তাদের আর কোনো জায়গাজমি নেই। তাই জীবনের সাথে যুদ্ধ করে বাবা-মা ও ভাই-বোনসহ বসবাস করেন ঝুঁকিপূর্ণ ঘরটিতে।

আখিঁ লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের কুতুবপুর গ্রামের হারুন ও শাহিনুর বেগমের দাম্পত্য ১ম কন্যা।

জানা গেছে, সংসারের অভাব অনটনের কারণে ৩ বছর পূর্বে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যায় আখিঁর লেখাপড়া। তবে বন্ধ হয়নি তার ছোট ভাই মোঃ মামুন হোসেন ও ছোট বোন মাহি আক্তারের পড়ালেখা। মামুন পড়ে ৯ম শ্রেণীতে আর মাহি পড়ে পঞ্চম শ্রেণীতে।

তাদের পড়ালেখার খরচ চালাতেও খুব কষ্ট হয় মা বাবার। আখিঁ নিজের স্বপ্ন পূরণ না করতে পারলেও চেষ্টা করে যাচ্ছেন ভাই বোনের স্বপ্ন পূরণ করতে। তার বাবা হারুন ঢাকাতে সাত হাজার টাকার চাকুরী করেন। এ টাকা দিয়ে কোনরকম সংসার চলে আখিঁদের। তবে তারা যে ঘরে বসবাস করেন, সেই ঘরটি সম্পূর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ। যেকোনো সময় ঘরটি ভেঙে পড়তে পারে। তাই ঘরটি মেরামত করতে প্রয়োজন অনেক টাকার।

আখিঁ বলেন, স্বপ্ন ছিলো লেখাপড়া করে বাবা-মার সংসারে হাল ধরতে। তার আগেই বন্ধ হয়ে গেল আমার লেখাপড়া। বাবার সামান্য বেতন থামিয়ে দিয়েছে আমার স্বপ্ন। তাই দর্জির কাজ শিখে নিলাম। তবে ভাই বোনের পড়ালেখা বন্ধ হতে দিবো না কিছুতেই আখিঁ।

আখিঁর মা শাহিনুর বেগম বলেন, অভাবী সংসার। খুব কষ্ট করে জীবন যাপন করি। আখিঁ ৭ম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করেছে। টাকার অভাবে মেয়েটি পড়তে পারেনি। তার বাবা সামান্য আয় দিয়ে সংসার চালাতে খুব কষ্ট হয়। শুধু তাই নয় থাকার ঘরটি পর্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। বৃষ্টি আসলে পুরো ঘরে পানি পড়ে। শুনছি সরকার ঘর দেয়। আমার একটি ঘর প্রয়োজন। ঘর না দেখ কয়েক বান টিল পেলও ঘরটি মেরামত করতে পারতাম।

লাহারকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মুশু পাটোয়ারি বলেন, আখিঁদের পরিবারটি খুব অসহায়। তাদের থাকার ঘরটি জীর্ণশীর্ণ। তাই ইতিমধ্যে স্থানীয় দুইটি সামাজিক সংগঠন ইউনাইটেড-১৫ ও একাতা যুব সংঘ উদ্যোগ নিয়েছে ঘরটি মেরামত করে দেওয়ার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে সহযোগীতা করার কথা জানা এ ইউপি চেয়ারম্যান।

Print Friendly, PDF & Email