চীনে করোনাভাইরাসে মৃত বেড়ে ৪১

চীনে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪১ জনে। সেইসঙ্গে বেড়েছে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া নতুন রোগীর সংখ্যা, বড় হচ্ছে দেশের তালিকাও। সবশেষ অস্ট্রেলিয়া ও ফ্রান্সে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর তথ্য জানা গেছে।শনিবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে চীনা কর্তৃপক্ষ করোনাভাইরাসে ৪১ জনের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছে। আর আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এক হাজার দুইশ ছাড়িয়েছে।

একদিন আগেও ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ছিল ২৬, আক্রান্তের সংখ্যা ছিল আট শতাধিক।এদিকে শনিবার সকালে এক ব্যক্তি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। আক্রান্ত ব্যক্তি ৫০ বছর বয়সী চীনা নাগরিক বলে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন ভিক্টোরিয়া রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেনি মিকাকস।অন্যদিকে ইউরোপের দেশ ফ্রান্সে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাগনেস বাইয়ুন বলেন, আক্রান্তরা সম্প্রতি চীন ভ্রমণে গিয়েছিলেন।এর আগে চীন বাদে বিশ্বের নয়টি দেশে ২৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার তথ্য জানানো হয়। তবে শনিবার তালিকায় যুক্ত হলো অস্ট্রেলিয়া ও ফ্রান্সের নাম। যার মাধ্যমে চীনের বাইরে ১১টি দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৭ জনে।ভারতের কেরালা রাজ্যে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ১১ জনকে পর্যবেক্ষণে রাখার কথা জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, চীনে অধ্যয়নরত অনেক শিক্ষার্থীকেও পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।তবে ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে চীন। এরইমধ্যে আক্রান্তদের চিকিৎসায় নতুন একটি হাসপাতাল নির্মাণের কথা জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। আগামী ১০ দিনের মধ্যে ২৫ হাজার বর্গফুটের হাসপাতালটি রোগীদের চিকিৎসাসেবায় কাজ শুরু করবে। যাতে শয্যা থাকবে এক হাজার।আর ভাইরাসটি যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য চীনের অন্তত ১৪টি শহরে পর্যটকদের ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এসব শহরে অন্তত চার কোটি মানুষের বসবাস। একইসঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে অনেক পর্যটন স্পট ও খাবারের আন্তর্জাতিক চেইন শপ। ফ্লাইট বাতিল করেছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্স সংস্থা।শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত এ ভাইরাস উহানের সামুদ্রিক খাবার ও পশুর বাজার থেকে ছড়িয়ে পড়ে বলে জানা যায়।

Print Friendly, PDF & Email