এ খাবারগুলো খেলেই বিপদ!

বেঁচে থাকতে হলে খাদ্য গ্রহণ করতেই হবে। কিন্তু সব খাবার কি খাওয়া উচিত? আমাদের আশেপাশেই এমন কিছু খাবার রয়েছে যা মৃত্যু ডেকে আনতে পারে।

পটকা মাছ

বিপজ্জনক হলেও জাপানে অত্যন্ত দামি ও জনপ্রিয় পটকা মাছ। এই মাছ খুবই বিষাক্ত ও ভয়ঙ্কর। পটকা মাছের দেহে রয়েছে টেট্রোডোটক্সিন নামের একটি বিষাক্ত উপাদান। একে সায়ানাইডের চেয়েও মারাত্মক বলে মনে করা হয়। পটকা মাছের রান্না করলেও তার আগে এর বিষাক্ত অংশগুলো (মস্তিষ্ক, চোখ, ডিম্বাশয়, যকৃত, অন্ত্র) ফেলে দিতে হবে। এর কোনো অংশ থেকে গেলে এটি মারাত্মক বিপদ ডেকে আনতে পারে।

কাসু মারজু পনির

পনির খেতে সুস্বাদু, তবে বিশেষ এই পনিরের ভেতরে থাকে পোকামাকড়। ইতালির সারডিনিয়ায় এই পনির বেশ জনপ্রিয়। পেকোরিনো পনিরের সঙ্গে কীটের লার্ভা মিশিয়ে তৈরি করা এই কাসু মারজু পনির। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কীটগুলো পনিরকে নরম করে তোলে। অর্থাৎ এটি যখন খাওয়ার জন্য দেওয়া হয় তখন পনিরের ভেতরটা অনেকখানি ঘন তরল হয়ে থাকে।গর্জনজোলা পনিরের সঙ্গে এর স্বাদে মিল রয়েছে। কীটপতঙ্গের উপাদান যুক্ত হওয়ায় কাসু মারজুর শক্তিশালী ও স্বতন্ত্র স্বাদ রয়েছে। কিন্তু এতে থাকা পোকাগুলো ধরতে আপনাকে ত্বরিতগতি সম্পন্ন হতে হবে। পনির খাওয়ার সময় এসব পোকা ১৫ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বাতাসে লাফ দিতে পারে। এছাড়াও, এই পনির খাওয়ার ফলে মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে।

জয়ফল

রান্নায় ঘ্রাণের জন্য এই মশলা ব্যবহার করা হয়। বিখ্যাত এই মশলাটি আসে ইন্দোনেশিয়ার স্থানীয় একটি গাছ থেকে। তবে অতিরিক্ত জয়ফল খেলে মনোরোগ দেখা দিতে পারে।

সয়াবিনের সঙ্গে রেড বিনস

কাঁচা রেড বিনে এমন একটি উপাদান রয়েছে যা দূর না করলে স্বাস্থ্যের ক্ষতির কারণ হতে পারে। শিম ও মটরশুঁটির বেশ কিছু প্রজাতি রয়েছে যেগুলো যদি ভালোভাবে প্রস্তুত না করেন তবে অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন।

রুবার্ব ডাঁটা

আমাদের পরিচিত ডাঁটার মতোই ডাঁটা এটি। জনপ্রিয় কিছু ব্রিটিশ মিষ্টান্ন বা পানীয় প্রস্ততকারক তাদের খাবারের উপাদান হিসেবে এটি ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এই রুবার্ব ব্যবহারের ক্ষেত্রে বিশেষ সতকর্তা অবলম্বন করতে হয়। কারণ, ডাঁটার সঙ্গে থাকা সবুজ যে পাতাগুলো থাকে, তার ভেতরে বিষ থাকে। আর তাই এ খাবার না খাওয়াই ভালো।এই খাবারগুলো খাওয়ার জন্য সতর্কতা মেনে চলুন। নয়তো, খাবারই ডেকে আনতে পারে বিপদ।

Print Friendly, PDF & Email