লক্ষ্মীপুরে খেলার মাঠ কেটে উপাধ্যক্ষের বাগান!

নিজস্ব প্রতিবেদক :

খেলার মাঠ কেটে ফুলের বাগান করছেন লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ শহীদ উদ্দিন। বুধবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে মাঠের পশ্চিম-দক্ষিণ অংশে বাগান তৈরির কাজ করতে দেখে গেছে। বাবার নামীয় ট্রাস্টের উদ্যোগে এটি করছেন। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও আশপাশের বাসিন্দারা।

জানা গেছে, কলেজ উপাধ্যক্ষ প্রফেসর শহীদ উদ্দিন তার বাবার নামীয় ট্রাস্টের অর্থায়নে বাগান তৈরির উদ্যোগ নেন। সেজন্য মাঠের পশ্চিম-দক্ষিণ অংশে লম্বায় ১৫০ ফুট ও সাড়ে ৩ ফুট প্রশস্ত স্থান বেছে নেওয়া হয়। বুধবার সকাল থেকে বাগান করার জন্য মাঠের মাটি কাটা হচ্ছে।

এদিকে মাঠে বাগান তৈরি করলে খেলার সমস্যা হবে বলে জানিয়েছেন কলেজের শিক্ষার্থীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, তারা প্রতিদিনই এই মাঠে খেলাধূলা করে। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এখানে বিভিন্ন বয়সী ছেলেরা খেলাধূলায় মেতে উঠে। মাঝ মাঠে খেলা চললে অনেকেই পাশে খেলাধূলা করে। বাগানটি হলে খেলায় বিঘ্ন ঘটবে।

পরিবেশবাদী সংগঠন সবুজ বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাবু বলেন, পরিবেশ রক্ষায় খেলার মাঠও অত্যন্ত জরুরী। খেলাধূলা যুবকদের মাদক থেকে দূরে রাখে। কিন্তু মাঠে বাগান হলে খেলায় বিঘ্ন ঘটবে। এতে তরুণদের জন্য ঝুঁকি রয়েছে। কলেজে এর আগেও বাগান করা হয়েছে। কিন্ত মাঠ কাটতে হয়নি। আশা করি, বাগানটি অন্যস্থানে করা হবে।

কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ফাহাদ বিন কামাল মাহি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। এ ব্যাপারে অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলবো।
বিষয়টি জানতে কয়েকজন শিক্ষকের সঙ্গে কথা বললে তারাও উদ্বেগ প্রকাশ করেন। ওই শিক্ষকদের দাবি, আউটডোর স্টেডিয়ামের মত মাঠের চারপাশেই ছেলেরা খেলাধুলা করে। বাগানটি হলে এতে সমস্যা হবে।

অভিযুক্ত উপাধ্যক্ষ প্রফেসর শহিদ উদ্দিনের মোবাইলফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মাহবুবুল করিম বলেন, ‘খেলার মাঠে ফুলের বাগান করার অনুমতি কোন শিক্ষককে দেওয়া হয়নি। মিটিংয়ে ব্যস্ত থাকায় মাটি কাটার বিষয়টি তিনি জানেন না।’ তবে খেলার মাঠে কাউকে ফুলের বাগান করতে দিবেন না বলেও জানান।

Print Friendly, PDF & Email