‘আমেরিকার মৃত্যু চাই, ইসরায়েল ধ্বংস হোক’

ইরাকের জনপ্রিয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ শাবির উপ-প্রধান আবু মাহদি আল মুহানদিসের মরদেহ দাফন করা হয়েছে। তাকে পবিত্র নাজাফ শহরের ওয়াদিউস সালাম কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। দাফন অনুষ্ঠানে অগণিত মানুষ অংশ নিয়েছেন।

এ সময় সবাই এক সুরে ‘আমেরিকার মৃত্যু চাই, ইসরায়েল ধ্বংস হোক’ বলে শ্লোগান দেন। তবে ইরান ইরাকের মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোয় তাদের মধ্যে এক ধরণের সন্তুষ্টি কাজ করছে। গত সোমবার তেহরানে ইরানের কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও হাশদ আশ শাবির সেকেন্ড ইন কমান্ড আবু মাহদি আল মুহানদিসসহ পাঁচ নিহতের জানাজার নামাজ তেহরানে অনুষ্ঠিত হয়। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা নামাজের ইমামতি করেন।

এদিকে, শুক্রবার মার্কিন সন্ত্রাসী হামলায় তারা নিহত হওয়ার পর পাঁচ ইরানি এবং আবু মাহদির মৃতদেহ ইরানে নিয়ে আসা হয়। ইরানে ৭০ লাখ মানুষ তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। আজ খুব ভোরে ইরানের কেরমানে জেনারেল সোলাইমানির মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

ইরাকে মার্কিন সেনা ঘাঁটি লক্ষ্য করে ১৫টি মিসাইল ছুঁড়েছে ইরান। সাত সকালেই সেই খবর পৌঁছে যায় বিশ্বের সংবাদমাধ্যমে। প্রচ্ছন্ন হুঁশিয়ারি দিলেও ট্রাম্প বলেছেন All Is Well. এরই মধ্যে ইরান জানিয়েছে যে ওই মিসাইল হামলায় ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইরানের সংবাদমাধ্যমে ইরানের রেভুলিউশনারি গার্ডের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বলেছেন, ৮০ জন ‘আমেরিকান টেররিস্ট’-কে মারা হয়েছে ওই মিসাইল হামলায়। ইরান আরও ১০০টা জায়গাকে টার্গেট করবে বলেও জানানো হয়েছে। সূত্র : পার্সটুডে।

Print Friendly, PDF & Email