লক্ষ্মীপুরে দু’পরিবারের সংঘর্ষে কুপিয়ে জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

লক্ষ্মীপুরে পূর্ব শত্রুতার জেরে দু’টি পরিবারের মাঝে রক্তক্ষয়ী  সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে জাকির হোসেন ও রাকিব নামে দুই সহদর ভাইকে কুপিয়ে জখম করা হয়। এছাড়াও উভয় পক্ষের আরো ৬জন আহত হয়। মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে লক্ষ্মীপুর শহরের ৬নং ওয়ার্ড বাঞ্চানগর গ্রামের জে বি রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে আহতদের উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত জাকির ও রাকিব ওই এলাকার মৃত তোফায়েল আহমেদের ছেলে। আরো আহত হয় বেল্লাল হোসেন,  হাসান, নাছির সহ উভয় পক্ষের ৬জন। তারা সবাই সম্পর্কে আত্মীয়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জাকির হোসেন জানান, নাছির আহম্মদগংদের সাথে তাদের দীর্ঘ দিনের জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এ নিয়ে তার বসতঘরে  গত কয়েকদিন পূর্বে আগুন দেয় প্রতিপক্ষ। ওই ঘটনায় আদালতে মামলা করা হলে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে তারা। ঘটনার দিন দুপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমার অনুপুস্থিতিতে পরিবারের সদস্যদের একদফা মারধর করে। এতেও ক্ষেন্ত হয়নি তারা। পরে রাত ১১টার দিকে আমি বাড়িতে এলে পরিকল্পিত ভাবে নাছির আহমদের ছেলে রুবেলের নেতৃত্বে সুবেল, নাহিদ  হাসান ও জামাই মাসুদ সহ বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে বাড়িঘরে হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে  আমার মাথাসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে রক্তাক্ত জখম করে। স্থানিয়রা আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। এসময় খবর পেয়ে আমার ভাই রাকিব হাসপাতালে এলে, সেখানেও সন্ত্রাসীরা হামলা করে তাকেও রক্তাক্ত জখম করে।

এসময় তিনি হামলাকারি রুবেলকে এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী ও পিকআপ চুরি মামলার আসামী বলেও অভিযোগ করেন।

আহত রাকিব জানায়, হামলার সময় আমি বাড়ির বাহিরে ছিলাম। আমার ভাইকে হাসপাতালে নেওয়ার কথা শুনে মোটরসাইকেল যোগে সেখানে গেলে রুবেলের লোকজন আমার উপর হামলা করে রক্তাক্ত জখম করে। এঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন তিনি।

অপর দিকে প্রতিপক্ষ নাছির আহমদ জানান, আমাদের কেউই তাদের উপর হামলা করেনি। বরং তারাই ইস্যু ধরে আমার পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে ছেলে হাসান ও মেয়েসহ কয়েক জনকে আহত করেছে। তাদের সাথে  আমাদের জমি নিয়ে বিরোধ আছে।

এব্যাপারে লক্ষ্মীপুর শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এর বক্তব্যের জন্য যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি।

 

Print Friendly, PDF & Email