বিক্ষোভে উত্তাল ভারত, গণমাধ্যমকে ‘সতর্কতা’ মোদি সরকারের

ভারতে সদ্য পাস হওয়া নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবিতে দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে বিক্ষোভ। উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ভারতের বিভিন্ন প্রদেশ। বিক্ষোভ ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে সরকার ও প্রশাসন। বেগতিক অবস্থায় পড়ে মাঠ পর্যায়ে পেশাগত দায়িত্বরত সাংবাদিকদের সঙ্গে মারমুখী আচরণ করছে পুলিশ। এবার প্রতিবাদ-বিক্ষোভের খবর প্রচারের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমকে ‘বিশেষ নির্দেশিকা’ দিয়েছে নরেন্দ্র মোদির সরকার।

এদিকে, এটাকে নাগরিকত্ব আইনবিরোধী বিক্ষোভের খবর প্রচারের ক্ষেত্রে বিজেপি সরকারের ‘সতর্কতা’ বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এ ব্যাপারে গত ২০ ডিসেম্বর জারি করা ওই নির্দেশিকায় বলা হয়, গত ১১ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের এক নির্দেশিকায় ‘দেশবিরোধী ও সহিংসতা ছড়াতে পারে’ এমন অনুষ্ঠান প্রচার বন্ধ রাখতে বলা হয়। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে, এখনো কিছু টিভি চ্যানেল ওই নির্দেশিকা অমান্য করছে। তারা এমন খবর ও অনুষ্ঠান প্রচার করছে, যা অশান্তি ছড়াতে পারে। তাই ফের এই বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করা হচ্ছে।

এর আগে, সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাস হতেই দেশের সব সংবাদমাধ্যমের কাছে ১১ ডিসেম্বর প্রথম নির্দেশিকা দেয় বিজেপির সরকার। কিন্তু ওই নির্দেশনার পরও সংবাদ প্রচারের ক্ষেত্রে গণমাধ্যম সরকারের মনমতো আচরণ না করায় নতুন নির্দেশিকা জারি করা হলো।

এতে নির্দিষ্ট করে বলা হয়, দেশের অখণ্ডতায় আঘাত আনতে পারে এমন কোনো বিষয়বস্তু প্রচার করা যাবে না। সহিংসতা ছড়াতে বা আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে এমন খবরও প্রচার করা যাবে না। প্রকাশ-প্রচার করা যাবে না জাতীয়তাবাদবিরোধী কোনো খবরও।

সূত্র: দ্য প্রিন্ট

Print Friendly, PDF & Email