গভীর রাতে কম্বল নিয়ে অসহায়দের পাশে ইউএনও

গভীর রাতে সামর্থ্যবান মানুষগুলো শীতে বাড়িতে ল্যাপ বা কম্বল মুড়িয়ে ঘুমাচ্ছে। আর রাস্তায় বিভিন্নস্থানে শৈত প্রবাহে কম্বল বা ল্যাপের অভাবে কাতরাচ্ছে ছিন্নমূল ও অসহায় মানুষ। তাই অসহায় এ মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে গভীর রাতে কম্বল নিয়ে বের হয়ে পড়লেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক।

বুধবার গভীর রাতে ফতুল্লা রেলস্টেশন ও লঞ্চঘাটসহ বিভিন্ন এলাকায় ছিন্নমূল ও অসহায় লোকদের খুঁজে খুঁজে তাদের শরীরে কম্বল জড়িয়ে দেন ইউএনও।
এ সময় ফতুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান স্বপন, সদর উপজেলার হিসাব সহকারী মনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ইউএনও নাহিদা বারিক বলেন, প্রচণ্ড শীতে ছিন্নমূল ও অসহায় মানুষকে একটা করে কম্বল দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। এই শীতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমার দায়িত্ব বলে আমি মনে করি। যে কারণে প্রচণ্ড শীতেও আমি ঘরে বসে থাকতে পারিনি, কম্বল নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে গেছি।

এ বিষয়ে ফতুল্লা ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান স্বপন জানান, নির্বাহী কর্মকর্তা গরীব মানুষের কষ্ট লাঘবে নিজ উদ্যোগেই গভীর রাতে বের হন। গভীর রাতেই প্রকৃত গরীব মানুষগুলোকে এই শীতে বস্ত্রহীন অবস্থায় রাস্তায় পাওয়া যায়। ইউএনর এই উদ্যোগ একটি শিক্ষনীয় পদক্ষেপ হতে পারে আমাদের জন্য।

Print Friendly, PDF & Email