লক্ষ্মীপুরের হাসানের বোলিং নৈপণ্যে সিলেটকে হারালো ঢাকা প্লাটুন

ঢাকা প্লাটুনের রান পাহাড়েই চাপা পড়ল সিলেট থান্ডার। বঙ্গবন্ধু বিপিএলে দল দেখল হ্যাটট্রিক হার। তিন ম্যাচ খেলে তিনটিতেই জয় অধরা! উল্টো পিঠে টানা দুই জয়ের ছন্দে উড়ছে ঢাকা প্লাটুন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীর এই বিশেষ বিপিএলের লড়াইয়ে নিজেদের টিকিয়ে রাখতে জয় জরুরি ছিল সিলেটের। কিন্তু মোসাদ্দেক হোসেনের দল ব্যাট-বল দুটোতেই ব্যর্থ। তাদের বিপক্ষে শনিবার রাতে ২৪ রানের অনায়াস জয় তুলে নিয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার ঢাকা।

মিরপুরের শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে রাতের আলোয় ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ঢাকা তুলে ১৮২ রান। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন এনামুল হক বিজয়! এরপর জবাব দিতে নেমে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫৮ রানে আটকে যায় সিলেট।

বড় টার্গেটের সামনে নেমে শুরুতেই অবশ্য পথ হারায় সিলেট। দলের অপয়া ১৩ রানে আন্দ্রে ফ্লেচারকে সাজঘরের পথ দেখান হাসান মাহমুদ। তারপর চায়ের শহরের দলটির ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার খেলা থামেনি। একের পর এক উইকেট হারিয়ে দল হয়েছে কোণঠাসা।

আন্দ্রে ফ্লেচার (১০), রনি তালুকদার (১৪), জনসন চার্লসের (১৯) পর ব্যর্থ ইনফর্ম মোহাম্মদ মিথুন (৮)। এক পর্যায়ে ৬৫ রানে ৬ উইকেট শেষ সিলেটের। ব্যর্থতার বৃত্তে দাঁড়িয়ে যা একটু লড়লেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন। তার ব্যাট থেকে আসে ৪৪ বলে ৬০ রান। তিনি অন্তত বুঝিয়েছেন এই উইকেটে দেখে-শুনে খেললেন রান তোলা কঠিন কিছু নয়! তার ইনিংস শুধু হারের ব্যবধানটাই কমিয়েছে, অন্য কিছু নয়।

ঢাকার হয়ে দুটি করে উইকেট নেন মাশরাফি ও লক্ষ্মীপুরের হাসান মাহমুদ। একটি উইকেট নেন ওয়াহাব রিয়াজ।

শনিবারও টস ভাগ্যটা ছিল না মাশরাফি বিন মর্তুজার পক্ষে। টস হেরে প্রথম ব্যাট করতে নামলেও শুরুটা দুর্দান্ত ছিল ঢাকার। তামিম ইকবাল ও এনামুল হক বিজয় মিলে ৯.৪ ওভারে গড়েন ৮৫ রানের জুটি। ২৮ বলে ৩১ করে ফেরেন আগের ম্যাচে অর্ধশতক করা তামিম।

বিজয় ৪২ বলে ৬২ রান করে ফেরেন। ইনিংসে ছিল ১ ছক্কা ও ৮ বাউন্ডারি! জাকের আলি করেন ১২ বলে ২০।

শেষদিকে ওয়াহাব রিয়াজ ও থিসারা পেরেরার ব্যাটে বড় পুঁজি পেয়ে যায় ঢাকা। ৭ বলে ১৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ওয়াহাব ও থিসারার ব্যাটে ১১ বলে ২৩। ব্যাটসম্যানদের গড়ে দেওয়া ভিতে এবারের বিপিএলে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। আকাশ ছোঁয়া আত্মবিশ্বাস নিয়েই চট্টগ্রাম পর্ব শুরু করবে ঢাকা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ঢাকা প্লাটুন: ২০ ওভারে ১৮৩/৪ (তামিম ৩১, এনামুল ৬২, ইভান্স ২২, জাকের ২০, থিসারা ২৩*, ওয়াহাব ১৭*; নাঈম ১/৩৬, ইবাদত ১/৪০, মোসাদ্দেক ১/১৬ ও দেলোয়ার ১/২৮)।

সিলেট থান্ডার: ২০ ওভারে ১৫৮/৭ (রনি ১৪, ফ্লেচার ১০, চার্লস ১৯, মোসাদ্দেক ৬০, নাঈম ১০, দেলোয়ার ১৭; মাশরাফি ২/২৯, হাসান ২/২৪ ও ওয়াহাব ১/৩২)।

ফল: ঢাকা প্লাটুন ২৪ রানে জয়ী।

ম্যাচ সেরা: এনামুল হক বিজয়।

Print Friendly, PDF & Email