মুশফিকের আক্ষেপ

বিসিবির অঙ্গীকার আগামী বিপিএলে থাকবে না, দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের বৈষম্য। তবে শুধু নাম বিবেচনায় নয়, ঘরোয়া লিগের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করে, পারিশ্রমিক নির্ধারণ করা উচিত বলে মনে করেন খুলনা টাইগার্সের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ফলে স্থানীয় ক্রিকেটাররা ঘরোয়া লিগগুলোতে আরো সিরিয়াস হয়ে খেলবে বলে মন্তব্য মুশফিকের।

গেলো অক্টোবরে ১৩ দফা দাবিতে ক্রিকেটারদের আন্দোলন। যেখানে তিন নম্বরে ছিলো আগামী বিপিএলে স্থানীয় ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক বাড়ানোর দাবি। তবে কেনো সেই দাবি তুলেছিলেন ক্রিকেটাররা, তার যথার্থতা মিলেছে এবারের বিপিএলে।

রোহিঙ্গাদের বিষয়ে গাম্বিয়ার মামলা সরাসরি দেখতে ক্লিক করুন।

এবার ক্রিকেটারদের চুক্তির অর্থ পরিশোধের দায়িত্ব বিসিবির হলেও পারিশ্রমিক নির্ধারণে বৈষম্যটা স্পষ্ট। তাই আসর শুরু হতেই আবারো আলোচনায় এই ইস্যু।

বিদেশি ক্রিকেটারদের তালিকায় এ+ ক্যাটাগরিতে ছিলেন ১১ ক্রিকেটার। যাদের পারিশ্রমিক ১ লাখ ডলার, স্থানীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৮৫ লাখ টাকা। বিপরীতে দেশের শীর্ষ ক্যাটাগরির পারিশ্রমিক ৫০ লাখ টাকা। শফিউল, রাহী, রুবেল, সোহান, আল আমিন, আরিফুলদের মত ক্রিকেটাররা আছেন বি গ্রেডে, যার ভিত্তি মূল্য ১৮ লাখ টাকা।

বিপরীতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে মাত্র ৭টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা ড্যান ভিলাস ছিলেন শীর্ষ ক্যাটাগরিতে। যদিও সাদামাটা ক্যারিয়ারের এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কোনো দল পাননি। তাহলে কেনো এমন বৈষম্য। মুশফিকের আক্ষেপটা এখানেই।

মুশফিকুর রহিম বলেন, ‘কমপক্ষে ৫০ থেকে ৬০ জন খেলোয়াড় আছেন যারা খুবই ভালো খেলেন। তাহলে এরা বি গ্রেড সি গ্রেডে রয়েছেন। এদিকে খেয়াল দেয়া উচিত তাতে বাংলাদেশেরই ভালো হবে।’

বিসিবির আশ্বাস আগামী আসর থেকে দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের তারতম্য থাকবে না। তবে ক্রিকেটাররা চান মাঠে পারফর্ম করেই তাদের প্রাপ্য পারিশ্রমিক আদায় করে নিতে।

পারিশ্রমিক নির্ধারণে ঘরোয়া লিগে সারা বছরের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নিলে সঠিক মূল্যায়ন হবে বলে মনে করেন মুশফিক।

Print Friendly, PDF & Email