লক্ষ্মীপুরের প্রাচীন জমিদার বাড়ি হবে পর্যটকদের বিনোদন কেন্দ্র : লক্ষ্মীপুরে মান্নান

নিজস্ব প্রতিবেদক :
প্রায় ৪শ বছরের পুরোন প্রাচীন লক্ষ্মীপুরের দালাল বাজার জমিদার বাড়িতে পর্যটকদের বিনোদনের জন্য আরো উন্নয়ন কাজ করা হবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার জমিদার বাড়ির সার্বিক পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা জানান।
তিনি বলেন, ব্রিটিশ আমলের পরিত্যক্ত জমিদারদের প্রাচীন এ বাড়িটি দীর্ঘদিন বেদখল ছিলো। বর্তমানে এটি সরকারের প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের আওতায় সংরক্ষণ করা হয়েছে। যা পর্যটকদের জন্য বিনোদন কেন্দ্র হিসেবেও ঘোষনা করা হয়েছে। ইতোমধ্যে সরকারী ভাবে এ প্রাচীন বাড়িটিতে বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে প্রাচীন নিদর্শণগুলোর সাথে সরকারি বরাদ্দের মাধ্যমে আরো উন্নয়ন কাজ করা হবে।
পরিদর্শন কালে তিনি আরো বলেন, বিটিশ শাসন আমলে বিদ্যুৎ, গ্যাস ও পানির ব্যবস্থা ছিলো না। সে সময় সবাই পুকুর বা জলাশয়ের পানি ব্যবহার করতো। এজন্য ৪টি পুকুরও খনন করে যায় জমিদাররা। তাদের সেই রেখে যাওয়া পুরনো পুকুরগুলোর পাড়ে পর্যটকদের জন্য বসার ও চলাচলের জন্য উন্নয়ন কাজ করে দেওয়া হবে। তাছাড়া এসব পুকুর পরিবেশ ও জলবায় সংরক্ষণেও বিরাট ভূমিকা রাখবে।
এসময় তিনি বলেন, প্রাচীণ এ বাড়িটি সরকারি ভাবে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। সংরক্ষণ কাজে সকলের সহযোগীতার আহ্বান করেন তিনি।
পরিদর্শণ কালে পর্যটন এরিয়ায় পুলিশের অস্থায়ী একটি পুলিশ ক্যাম্পও পরিদর্শন করেন এবং এর উন্নয়ক কাজও করার আশ্বাস প্রদান করেন বিভাগীয় কমিশনার।
পরিদর্শনে উপস্থিত ছিলেন, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পাল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিকসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতণ কর্মর্তাবৃন্ধ।

প্রসঙ্গ, প্রায় ১৬শ শতাব্দীর পুরনো এই জমিদার বাড়িটি জমিদার লক্ষ্মী নারায়ণ বৈষ্ণব প্রতিষ্ঠা করেন। তার আদি নিবাস ছিল ভারতের কলকাতায়। পরবর্তীতে তিনি লক্ষ্মীপুরে এসে এই জমিদারীর সুচনা করেন। তাই অনেকের কাছে এটি লক্ষ্মী নারায়ণ বৈষ্ণবের বাড়ি হিসেবেও পরিচিত। বর্তমানে দালাল বাজার জমিদার বাড়ি হিসেবে পরিচিতির কারণ হচ্ছে তার বংশধররা ব্রিটিশ শাসনামলে এই অঞ্চলের বাণিজ্যিক এজেন্ট ছিল। তাই স্থানীয় লোকেরা তাদেরকে ব্রিটিশদের দালাল বলে আখ্যায়িত করে। আর ঐখান থেকেই এই স্থানটির দালাল বাজার হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। ভারতবর্ষ ভাগ হওয়ার আগ পর্যন্ত জমিদার বংশধররা একাধারে এখানে জমিদারী পরিচালনা করতে থাকেন। পরবর্তীতে নোয়াখালী-লক্ষ্মীপুরের সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার সময় তারা এই জমিদার বাড়ি ত্যাগ করে অন্যত্র চলে যায়। এরপর থেকে এবাড়িটি দালাল বাজার জমিদার বাড়ি নামে পরিচিত।

Print Friendly, PDF & Email