লক্ষ্মীপুরে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর জমির দখলের অভিযোগ পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে

রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি :
লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রীর ভূমি জবরদখল করার অভিযোগ উঠেছে পুলিশ সদস্যসহ স্থানীয় কয়েক জোরদারদের বিরুদ্ধে।
জানা যায়, চর আলগী ইউনিয়নের রামদয়াল বাজার সংলগ্ন সরকারী খাস যায়গা বন্দোবস্ত নেন মুক্তিযোদ্ধা আবুল বাশার। জীবদ্দশায় তিনি ভোগদখল করে আসছিলেন। তার মৃত্যুর পর গত কয়েক বছর থেকে কাইয়ুমের ছেলে পুলিশ সদস্য নুরনবীসহ স্থানীয় কয়েক জোরদার ভূমিটি জোরপূর্বক দখল করে দোকান নির্মাণ করে।
এ নিয়ে ভূক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী রোকেয়া বেগম বাদী হয়ে ন্যায় বিচারের প্রত্যাশায় আদালতে মামলা দায়ের করেন।
মামলার প্রেক্ষিতে উক্ত ভূমির উপর আদালতের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ থাকা স্বত্ত্বেও এ আদেশ অমান্য করে গত কয়েকদিন থেকে সেখানে নুরনবী নিজের পুলিশী পেশার ক্ষমতা প্রয়োগ করে বিরোধপূর্ণ ভূমিতে দোকান নির্মাণ করছেন। মুক্তিযোদ্ধার পোষ্যরা বাঁধা দিলেও তারা গায়ের জোরে ঘর নির্মাণ করেন।
মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী রোকেয়া বেগম বলেন, সরকার বাহাদুর দরিদ্র মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের ভরন পোষনের জন্য এ ভূমিটুকু বন্দোবস্ত দেয় কিন্তু স্থানীয় প্রভাবশালী মৃত ইঞ্জিনিয়ার বাশারের ছেলে শওকত এবং ক্ষমতাধর পুলিশ সদস্য নুরনবী গংরা তাদের ক্ষমতা প্রদর্শন করে আমাদের ভোগদখলীয় যায়গায় জোরপূর্বক দোকান নির্মাণ করছেন। আমি ন্যায় বিচার চাই।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুচিত্র রঞ্জন দাস জানান, আমি আদালতের নির্দেশে সরেজমিন তদন্ত করেছি।