দ্বিতীয় ম্যাচ ভেস্তে গেলে বাংলাদেশেরই লাভ

আবহাওয়া অফিস আগেই পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছিল ম্যাচের দিন ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’ আঘাত হানতে পারে। কিন্তু হঠাৎ করেই ম্যাচের আগের দিন বুধবার থেকেই শুরু হয়ে গেল ঝড়-বৃষ্টি। দিনভরই আকাশ ছিল পরিষ্কার, ছিল কড়া রোদ, বৃষ্টির কোনও আভাসই দেখা যায়নি।  কিন্তু বিকাল নামতেই আকাশে জড়ো হতে শুরু করে কালো মেঘ। ক্রমশ তা খারাপ হতে শুরু করার পর সন্ধ্যা থেকে বইছে তীব্র ঝড়।

বৃহস্পতিবার ম্যাচের দিন আবহাওয়া কি রকম থাকে তারওপর নির্ভর করছে ম্যাচ হবে কি হবে না। রাজকোটের ম্যাচ না হলে কার বেশি ক্ষতি হবে ভারত না বাংলাদেশের? বাংলাদেশ যেহেতু দিল্লিতে প্রথম ম্যাচ জিতে নিয়েছে তাই দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ভেস্তে গেলে তাদেরই বেশি লাভ। তখন আর মাহমুদউল্লাহদের অন্তত সিরিজ হারের ভয় থাকছে না। মানে তৃতীয় টি-টোয়েন্টি হারলেও সিরিজ ১-১ এ ড্র হবে। আর জিতে গেলে তো ২-০ তে সিরিজই জিতবে বাংলাদেশ।

ম্যাচ পণ্ড হলে বেশি ক্ষতি হবে ভারতের। প্রথমত তাদের সিরিজ হাতছাড়া হয়ে যাবে। পরের ম্যাচটি জিতেও লাভ হবে না। তখন সিরিজ ড্র হবে। শিরোপাও ভাগাভাগি হয়ে যাবে। আর হারলে তো কথাই নেই। বাংলাদেশ ২-০ তে জিতবে। তাই ঝড়ের কারণে খেলা না হলে ভারতেরই ক্ষতি।

জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় দুর্বল হয়ে গেলেও তা ভারি বৃষ্টি ঝরাতে পারে। সেকারণে বাংলাদেশ-ভারতের দ্বিতীয় ম্যাচ নিয়ে তৈরি হয়েছে শঙ্কা। যদিও স্থানীয় আয়োজকরা এখনই আশা ছাড়ছেন না।