ইনজুরি থেকে ফিরেই লক্ষ্মীপুরের ক্রিকেটার হাসান মাহমুদের সাফল্য

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ইনজুরি কাটিয়ে ক্রিকেটে  ফিরেছেন লক্ষ্মীপুরের হাসান মাহমুদ। জাতীয় ক্রিকেট লিগ ২০১৯-২০ টুনামেন্টে তিনি খেলছেন চট্টগ্রাম বিভাগের  হয়ে। দির্ঘদিন পর মাঠে ফিরেই প্রথম ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ফলে৯ উইকেটে জয় পায় চট্টগ্রাম।

প্রসঙ্গ, হাসান মাহমুদ লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকার বাসিন্দা। সে গতবছর প্যাকটিস করার সময় ডান হাতের বাহুতে ব্যাথা পায়। এরপর বোলিং করতে কোন সমস্যা না হলেও বল থ্রো করতে সমস্যা হতো। এজন্য বিসিবির অর্থায়নে ভারতের মুম্বাইতে চিকিৎসা শেষে গত ৩১ জানুয়ারি ঢাকায় পৌঁছেন। এরপর থেকে সে ডাক্তারের পরামর্শে মাঠের বাইরে ছিলেন। হাসান মাহমুদ বর্তমানে বাংলাদেশ হাই পারপমেন্স টিমে রয়েছে।

ম্যাচের প্রথম দুই দিন ভেসে গিয়েছিল বৃষ্টিতে। দ্বিতীয় স্তরের এই ম্যাচে শেষ দিনে মাত্র ৪৪ রানের লক্ষ্য চট্টগ্রাম পেরিয়ে যায় ৬.৪ ওভারেই।

আগের দিন ইফরান হোসেনের তোপে সিলেট গুটিয়ে গিয়েছিল ১৬৩ রানে। ইফরান নেন ৬ উইকেট। জবাবে পিনাক ঘোষের সেঞ্চুরিতে দিন শেষে চট্টগ্রামের সংগ্রহ ছিল ৬ উইকেটে ১৯১ রান।

রাজশাহীতে মঙ্গলবার শেষ দিন ৯ উইকেটে ২২৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে চট্টগ্রাম। মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন করেন ২৯ রান। সিলেটের হয়ে আবু জায়েদ রাহী ৮৬ রানে নেন ৪ উইকেট।

পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে নেমে সিলেট গুটিয়ে যায় মাত্র ১০৯ রানেই। তিন অঙ্কে যেতে পারেন শুধু শাহানুর রহমান (১৪), অলক কাপালি (৩১) ও রেজাউর রহমান (১৬*)।

তরুণ পেসার রানা ৩০ রানে নেন ৫ উইকেট। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এই প্রথম পাঁচ উইকেট পেলেন তিনি। হাসান মাহমুদ ও ইফরান নেন ২টি করে উইকেট। এছাড়াও হাসান  মাহমুদ  প্রথম ইনিংসে ১৫ ওভার বল করে ৪৯ রানে ৩  উইকেট নিয়েছেন।

পরে ছোট লক্ষ্য তাড়ায় শুরুতে সাদিকুর রহমানকে হারালেও চট্টগ্রামকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন ইরফান শুক্কুর (২৬*) ও পিনাক ঘোষ (১০*)।

দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হন ইফরান হোসেন।