লক্ষ্মীপুরে ১০ টাকার জন্য সন্তানকে হত্যা করল মা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
লক্ষ্মীপুরে পারিবারিক কলহের জের ধরে কাউছার নামের ৭ বছর বয়সী এক শিশুকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই শিশুর নিজ গর্ভধারিনী মা স্বপ্না বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে মঙ্গলবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এর আগে সোমবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের দক্ষিণ চররুহিতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কাউছার স্থানীয় পিকআপভ্যান চালক মো. রাসেলের ছেলে ও লোকমানিয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসার ১ম শ্রেণির ছাত্র।

প্রতিবেশীরা জানান, গাড়ি চালানোর কাজে বেশিরভাগ সময় বাইরে থাকেন স্বপ্না বেগমের স্বামী রাসেল। এ সুযোগে এলাকায় উশৃঙ্খল জীবনযাপন করতেন স্বপ্না। সোমবার রাতে মায়ের কাছে ১০ টাকা চাইলে তাকে মারধর করে তার গলাটিপে ধরেন মা। কিছুক্ষণ পর বাবা (সন্তান) মারা গেছে বলে চিৎকার দিয়ে কান্নাকাটি শুরু করেন স্বপ্না। এর আগেও স্বপ্নার বাবার বাড়ীতে আরেকটি সন্তান রহস্যজনক কারণে মারা যান বলে জানান প্রতিবেশীরা।

লক্ষ্মীপুর সদর (মডেল) থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আজিজুর রহমান মিয়া গনমাধ্যমকর্মীদের জানান, দীর্ঘদিন ধরে স্বপ্নার স্বামীর (২য় বিয়ে) ও পারিবারিক অর্থনৈতিক সংকট নিয়ে তাদের সংসারে কলহ-বিবাদ চলে আসছিল। রাতে শিশুটি তার মায়ের কাছে ১০ টাকা চাইলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।
এসময় তার ওড়না কেটে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে অপপ্রচার চালায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সন্দেহজনকভাবে শিশুটির মাসহ ৪ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এক পর্যায়ে মা স্বপ্না শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওসি।