শেখ হাসিনার লড়াইয়ের শক্তি আমার বিশাল প্রেরণা

ভারতের প্রধান বিরোধী দল প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘বহুল প্রতীক্ষিত’ আলিঙ্গন পেয়েছেন।

রোববার (৬ অক্টোবর) রাজধানী নয়াদিল্লিতে ভারত সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলিঙ্গন নিয়ে এমন মন্তব্য করেছেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী।

রোববার (৬ অক্টোবর) জাতীয় কংগ্রেস সভাপতি মা সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে ভারত সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এই সাক্ষাতে মিলিত হন সোনিয়া। বৈঠক শেষে এক টুইট বার্তা প্রকাশের মাধ্যমে প্রিয়াংকা শেখ হাসিনাকে বড় ধরনের অনুপ্রেরণা হিসেবে উল্লেখ করেন। টাইমস অব ইন্ডিয়া

টুইটারে প্রিয়াংকা গান্ধী বলেছেন, শেখ হাসিনার বৈশিষ্ট্য হলো তিনি যা বিশ্বাস করেন সেটির জন্য সাহস ও অধ্যবসায়ের সঙ্গে লড়াই করা। তিনি লিখেছেন, ‘শেখ হাসিনাজির কাছ থেকে প্রতীক্ষিত আলিঙ্গন পেলাম। দীর্ঘদিন ধরে তার সঙ্গে পুনরায় সাক্ষাতের অপেক্ষায় ছিলাম। স্বজন হারানো ও প্রতিকূলতা মোকাবিলায় তার শক্তি এবং যা বিশ্বাস করেন সেটির জন্য সাহস ও অধ্যবসায়ের সঙ্গে লড়াইয়ের কারণে তিনি সব সময় আমার কাছে বড় ধরনের অনুপ্রেরণা।’

এর আগে কংগ্রেস নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাতে কংগ্রেস নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, কংগ্রেস সভাপতি সোনিয়া গান্ধী, প্রিয়াংকা গান্ধী ও আনন্দ শর্মা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, উভয় দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করতে কংগ্রেস নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করেছেন।

এর আগে শনিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন শেখ হাসিনা। দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পর এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, ‘প্রধানমন্ত্রী মোদি (শেখ হাসিনাকে) অবহিত করেছেন যে তার সরকার ভারতে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নিয়ে সম্ভাব্য দ্রুততম সময়ে চুক্তিটি সম্পাদনের জন্য কাজ করছে।’

‘২০১১ সালে দুই সরকারের সম্মতি অনুযায়ী তিস্তা নদীর পানি বণ্টনে ফ্রেমওয়ার্ক অব ইন্টেরিম এগ্রিমেন্ট আশু স্বাক্ষর ও বাস্তবায়ন’-এর জন্য বাংলাদেশের জনগণ অপেক্ষায় রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে দ্রুততম সময়ে তিস্তা চুক্তির আশাবাদ ব্যক্ত করেন মোদী।