চুল দেখে বুঝে নিন কোন মেয়ে কেমন

কথায় বলে নারীরা রহস্যময়ী, তাদের বুঝতে গেলে মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হয়। কিন্তু চুল দেখে নারীচরিত্র বোঝা যায়। চুলের প্রকৃতি তো মানুষের জেনেটিক কোডেরই বাহ্যিক রূপ। সুতরাং, চুলের মাধ্যমে নারীদের বৈশিষ্ট্য চিনে নেয়া মোটেও অস্বাভাবিক কিছু নয়।

আসুন দেখে নিই চুলের প্রকৃতি অনুযায়ী নারীদের কিছু বৈশিষ্ট্য:

লম্বা চুল: লম্বা চুলের নারীরা হয় গুণী ও সৌভাগ্যবতী। অনেকের মতে, এই ধরনের নারীদের মধ্যে থাকে সুপ্ত স্বাধীনচেতা মনোভাব।

চুলের গোছ ভাল হলে: চুলের গোছ যদি ভালো বা মোটা গোছের হয়, তাহলে সেই নারী স্বামীর ওপর ভালো কর্তৃত্ব চালাতে পারে। নিজের দাপটেই চালান নিজের সংসার। অন্যান্য অনেকের থেকে এই নারীরা হয় একটু আলাদা।

ছোট চুল: অনেকেই ছোট চুল পছন্দ করেন। এদের মধ্যে সুপ্ত শিল্পীমন লুকিয়ে থাকে। এছাড়া এরা অর্থ রোজগারে বেশ মনোযোগী। অন্যের ওপর নির্ভরশীল হতে মোটেও পছন্দ নয় তাদের।

কোঁকড়া চুল: যাদের কোঁকরানো চুল, তারা কাজকর্মে বেশ পটু। এদের মধ্যে থাকে নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা। তবে বাস্তব জীবনে একটু আধটু অভিনয় করতেও বেশ পছন্দ তাদের।

ঢেউ খেলানো চুল: অনেকের চুলই ঢেউ খেলানো। এরা আধুনিক মনোভাবাপন্ন হয়ে থাকেন। থাকে না কোনো পিছুটান।

সোজা চুল: যাদের সোজা স্ট্রেট চুল, এরা খুব সোজা সরল পথে হাঁটতে পছন্দ করেন। প্যাঁচালো জিনিস পছন্দ করেন না। তবে এদের ওপর মায়ের প্রভাব বেশি বিদ্যমান।

গোলাকার প্যাঁচ যুক্ত চুল: যদি কোনো নারীর মাথার ডান দিকে ঘুর্ণি থাকে, তাহলে তিনি অত্যন্ত বুদ্ধিমতী। যাদের মাথায় এই ঘুর্ণি থাকে, তারা জীবনে খুবই উচ্চপদে আসীন হন।

চুল মোটা গোছের না পাতলা: যদি চুলের গুণমান মোটা হয়, তাহলে আপনার মধ্যে প্রচুর উচ্ছাস-উদ্দীপনা থাকবে। আর পাতলা চুল হলে খুবই স্পর্শকাতর স্বভাবের। সহজেই মুষড়ে পড়েন তারা। নিজেকে গুটিয়ে রাখতে বেশ ভালোবাসেন।