কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ গ্রেফতার

ভারতের বিতর্কিত পাবলিক সেফটি অ্যাক্টে অধিকৃত কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও সংসদ সদস্য ফারুক আব্দুল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের জ্যেষ্ঠ এই রাজনীতিক গত ৫ আগস্ট থেকে গৃহবন্দি আছেন। তার এই বন্দিদশা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না; তা জানতে চেয়ে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করেছিলেন তামিলনাড়ুর এমডিএমকে নেতা ভাইকো। দেশটির বিতর্কিত এই আইনে কোনো ব্যক্তিকে অভিযোগ ছাড়াই দুই বছরের বেশি সময় ধরে আটকে রাখা যায়।

দেশটির সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি এস এ বোবদে এবং বিচারপতি এস এ নাজিরের বেঞ্চে শুনানি শুরু হলে কেন্দ্র ও জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনকে এ বিষয়ে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেন।সোমবার যখন এই আবেদনের শুনানি শুরু হয়, ঠিক তার কিছুক্ষণ পর ফারুক আব্দুল্লাহকে বিতর্কিত পাবলিক সেফটি আইনে গ্রেফতার দেখায় স্থানীয় প্রশাসন।

মার্কিন বার্তাসংস্থা এপি বলছে, ৮১ বছর বয়সী প্রবীণ এই রাজনীতিক জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রীও ছিলেন। সোমবার তাকে কাশ্মীরের গ্রীষ্মকালীন রাজধানী শ্রীনগরে তার বাসভবন থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কাশ্মীর পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকতৃা মুনির খান বলেন, আমরা তাকে গ্রেফতার করেছি। তাকে কতদিন গ্রেফতার দেখানো হবে; সেবিষয়ে গঠিত একটি কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে।

ফারুক আব্দুল্লাহই প্রথম কোনো ভারতপণ্থী কাশ্মীরি রাজনীতিক; যাকে বিতর্কিত পাবলিক সেফটি আইনে গ্রেফতার করা হলো। বিতর্কিত এই আইনে গত দুই দশকে অন্তত ২০ হাজার কাশ্মীরিকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দেশটির মানবাধিকার কর্মীরা দাবি করেছেন।