ও আগে নামে নাই কেন প্রশ্ন প্রধানমন্ত্রীর

দ্বাদশ বিশ্বকাপ আসরে নিজেদের সপ্তম ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারিয়েছিল টাইগাররা। এরপর বিশ্বকাপের দুই ম্যাচ, শ্রীলঙ্কা সফর ও সবশেষ ঘরের মাঠে আফগানিস্তারের বিপক্ষে টেস্ট পারজয়। বেশ কোণঠাসা হয়েছিল টাইগাররা। কিন্তু গতকাল ত্রিদেশীয় সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচেও প্রায় পরাজয়ই বরণ করছিল। দলীয় ২৯ রানে দলের প্রথম চার ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর ৬০ রানের মাথায় ছয় উইকেট হারায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। দল যখন খাদের কিনারায় ঠিক তখনই ত্রাতা হয়ে এলেন তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব।

ক্যারিয়ারের নিজের দ্বিতীয় টি-টুয়েন্টিতেই জয় করে নিয়েছেন ১৮ কোটি বাঙালির মন। জিতে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনও। দুর্দান্ত ম্যাচ খেলে দলকে জয়ের দ্বার প্রান্তে পৌঁছে দেয়ায় বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আফিফকে অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলকেও।

মাত্র ২৬ বলে ৫২ রান করে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতে সংবাদ সম্মেলনে আসেন আফিফ। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কী কথা হলো এমন প্রশ্নের জবাবে আফিফ বলেছেন, ‘উনি আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। ম্যাচ জেতায় পুরো দলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।’

বিসিবি বস নাজমুল হাসানও জানালেন, প্রধানমন্ত্রীর ম্যাচের খোঁজ খবর রাখার বিষয়টি। তিনি বলেছেন, ‘ম্যাচের কঠিন মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী দোয়া পড়েছেন, বাংলাদেশ যেন ম্যাচটি জিততে পারে। ম্যাচ শেষ হওয়ার পর ফোনে ক্রিকেটারদের সঙ্গে কথা বলেছেন।’

পাপন আরো বলেন, ‘এসব কি হচ্ছে? তারপর আফিফের সাহসী, স্বচ্ছন্দ ও সাবলীল ব্যাটিং দেখে বলেন, আফিফকে কেন এত দেরিতে এবং নিচে নামানো হলো? প্রশ্ন করে জানতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’

‘পাপন এইটা কী হচ্ছে? এ রকম হচ্ছে কেন? উনি তখন চিন্তিত। তারপর যখন আফিফ আসল। আফিফের খেলা দেখে বললেন- ও আগে নামে নাই কেন? একে তো আগে দেখিনি! আমি বললাম, আপা ও তুলনামূলকভাবে একদম নতুন এসেছে। মাত্র ১৯ বছর বয়স। ওর আসলে পাঁচে খেলার কথা ছিল। যাই হোক যেখানে খেলেছে সেট বড় কথা না। ভালো খেলেছে। উনি বললেন- ভালো খেলেছে, ওর খেলা দেখেছি।’ যুক্ত করেন বিসিবি প্রধান।