লক্ষ্মীপুরে বৃদ্ধ দিনমজুর হত্যার ঘটনায় মামলা, ৬ আসামী কারাগারে

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

লক্ষ্মীপুরে মো. বাবুল হোসেন (৬৫) নামে এক বৃদ্ধ দিনমজুরকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিহত বাবুলের স্ত্রী রওশন আরা বেগম বাদীয় হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৩জনকে আসামী করে লক্ষ্মীপুর সদর থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

এর আগে রবিবার ( ৮ সেপ্টেম্বর) রাত ৯টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর হামছাদী ইউনিয়নের পূর্ব বিজয়নগর গ্রামে সহিদ নামে এক কাঠমেস্ত্রীকে প্রতিপক্ষের হামলার হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে মারধরের শিকার হয়ে নিহত হন বৃদ্ধ মো. বাবুল হোসেন। নিহত দিনমজুর বাবুল হোসেন একই গ্রামের মৃত শহিদ উল্ল্যাহ্র ছেলে। খবর পেয়ে পুুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৬ জনকে আটক করে।

সোমবার দুপুরে পুলিশ আটককৃতদের মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, সদর উপজেলার হাসনাবাদ এলাকার আবদুল হাই’র ছেলে মো. সোহেল, হামছাদী গ্রামের দেলোয়ারের ছেলে মিরাজ ও কাশেম, মহাদেবপুর গ্রামের আবদুল কাদের ছেলে রাজু, বিজয়নগর গ্রামের শাহআলমের ছেলে উজ্জল, জাহাঙ্গির আলমের ছেলে রাব্বি।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, কাঠমেস্ত্রী সহিদের সাথে সদর উপজেলার হাসনাবাদ এলাকার আবদুল হাই’র ছেলে মো. সোহেলের পারিবারিক বিরোধ রয়েছে। ওই বিরোধকে কেন্দ্র করে রবিবার রাতে বিজয়নগর গ্রামের বাইতুল আমান জামে মসজিদ সংলগ্ন একটি চায়ের দোকানে সহিদের সাথে কথা কাটাকাটি পর ক্ষিপ্ত হয়ে সোহেল চলে যায়। কিছুক্ষণ পরে সোহেল ও তার অনুসারী মিরাজ, কাশেম, উজ্জল, রাজু ও রাব্বি দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে ওই দোকানে সহিদের উপর হামলা চালায়।

এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত দিনমজুর বৃদ্ধ মো. বাবুল হোসেন হামলাকারীদের বাঁধা দিয়ে সহিদকে বাচাঁনের চেষ্টা করে। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সোহেল ও তার অনুসারীরা। এক পর্যায়ে ওই বৃদ্ধ বাবুলকেও পিটিয়ে গুরুত্বর আহত করে তারা। এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে হামলাকারীদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে এবং মুমুর্ষ অবস্থায় আহত সহিদ ও বাবুলকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বৃদ্ধ বাবুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ দিকে ঘটনার পরপর স্থানীয় এলাকাবাসীর মাঝে উত্তেজনা সৃষ্টি। ঘটনায় হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ শুরু করে তারা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে বিচার আশ্বাসে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)এ কে এম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, দিনমজুর বাবুলকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় আটককতৃ ৬জনকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।