লক্ষ্মীপুরে ইলিশের খরা !

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ভরা মৌসুমের প্রায় দুই মাস শেষ তবুও জমে ওঠেনি মেঘনা উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুরের ইলিশের ঘাট ও হাট-বাজারগুলো। জেলেদের জালে প্রত্যাশিতভাবে ইলিশ ধরা পড়ছে না বলেই এ সংকট দেখা দিয়েছে। যেকারণে এখনও হাট-বাজারগুলোতে ইলিশের চড়া দাম। তবে মৌসুমের শেষ মাসে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তখন ইলিশের চড়া দাম থাকবে না বলে জানিয়েছে জেলা মৎস্য অধিদপ্তর।

জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বর। এই তিন মাসকে ইলিশের ভরা মৌসুম বলা হয়ে থাকে। এসময়টাই ইলশেগুঁড়ি বৃষ্টির সময়। দিনভর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির ফলে সমুদ্র থেকে নদীতে নেমে আসে প্রচুর ইলিশ মাছ। জেলেদের জালে ধরা পড়ে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। যার ফলে হাট-বাজার গুলোতে প্রচুর ইলিশ পাওয়া যায় এবং দামও সস্তা থাকে। কিন্তু চলতি বছর ভরা মৌসুমেও ইলিশের সংকট কাটেনি বলে জানিয়েছেন লক্ষ্মীপুরের জেলে, আড়ৎদার ও ক্রেতারা।

লক্ষ্মীপুর সদরের মোহাম্মদ আলাউদ্দিন বলেন, ‘বাজারে ইলিশের দাম চড়া। তাই মজুচৌধুরিহাট ঘাটে ইলিশ কিনতে এসেছি। কিন্তু এখানেও দাম কম নয়। প্রায় সাড়ে ৩ কেজি ওজনের ৫টি ইলিশ মাছের দাম হাঁকাচ্ছেন ৫ হাজার টাকা।’

মজুচৌধুরিহাট এলাকার জেলে মো. কামাল মাঝি বলেন, ‘আমরা ৪জন জেলে সারাদিন নদীতে জাল ফেলে যা ইলিশ পেয়েছি, তা মাত্র ৮শ’ টাকার। প্রায়ই এমন হয়। অথচ গত বছর গুলোতে এসময় আরও বেশি ইলিশ ধরা পড়েছিল।’

আড়ৎদার জিয়াউর রহমান মিন্টু বলেন, ‘এখনও প্রত্যাশিত পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়ছে না। যার কারণে ইলিশের দাম এখনও কমে নি। ছোট ইলিশ প্রতি কেজির দাম ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা। বড় ইলিশ প্রতি কেজি ১ হাজার থেকে ১২শ’ পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। তবে আড়ৎ গুলোতে দিনে যা ইলিশ বিক্রি হচ্ছে, তার দাম গড়ে ৩০-৪০ হাজার টাকার বেশি নয়।’ এবছর সর্বোচ্চ দেড় কেজি ওজনের ইলিশ মাছ পাওয়া গেছে বলেও জানান তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে জেলা সদরের মজুচৌধুরিহাট, কমলনগরের মতিরহাট, রামগতির আলেকজান্ডার ঘাট, রায়পুরের হাজিমারা ঘাটসহ যেসব ঘাটে ইলিশের বড় আড়ৎ রয়েছে সেসব ঘাট এখনও জমে ওঠে নি। কারণ যে পরিমাণ ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে তা প্রত্যাশার তুলনায় খুবই কম। এ নিয়ে স্থানীয় জেলে ও আড়ৎদাররা হতাশা প্রকাশ করছেন।

এদিকে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম মহিব উল্যাহ শীর্ষ সংবাদকে বলেন, এবছর নিরবিচ্ছিন্নভাবে বৃষ্টি না হওয়ায় সমুদ্র থেকে নদীতে প্রত্যাশিত পরিমাণে ইলিশ নেমে আসে নি। যেকারণে ভরা মৌসুমেও ইলিশের এই সংকট। এর পেছনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবও রয়েছে। তবে এ মৌসুমের শেষ মাস তথা সেপ্টেম্বরে প্রচুর পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এই কর্মকর্তা।

শীর্ষ সংবাদ/এফএইচ