সৌদি’র বিরুদ্ধে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

গত এপ্রিলে কারিগরি  ত্রুটির কারণে ‘হ্যাপিনেস-১’ নামীয় একটি ট্যাংকার জব্দ করে জেদ্দা বন্দরে আটক রাখে সৌদি কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘ ১১ সপ্তাহ পর ন্যাশনাল ইরানিয়ান ট্যাংকার কোম্পানির (এনআইটিসি) ওই ট্যাংকারটি ও সঙ্গে থাকা সব ক্রকে দুইটি টাগবোটের মাধ্যমে জেদ্দা থেকে ইরানের জলসীমায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ইরানের আধা সরকারি বার্তা সংস্থা তাসনিমের এক প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

এনআইটিসি বলছে, গত ৩০ এপ্রিল সুয়েজ খালের উদ্দেশ্যে যাত্রা করা ট্যাংকারটি যান্ত্রীক ত্রুটি দেখা দিলে জব্দ করে সৌদি রয়্যাল নৌ-বাহিনী। পরে জেদ্দা বন্দরে আটক রাখা হয়। প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হলেও ট্যাংকারটি ছেড়ে দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছিলো দেশটি বলে দাবি এই কোম্পানির।

তাসনিমের প্রতিবেদনে আরো বলা হচ্ছে, ট্যাংকারটি জব্দ করার পর তার রক্ষণাবেক্ষণ ও মেরামত খরচ হিসেবে ইরানের কাছ থেকে এক কোটি ডলারের বেশি অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। তারা বলছে, এটির রক্ষণাবেক্ষণ বাবদ সৌদিকে প্রতিদিন ২ লাখ ডলার দিতে হত। তবে ট্যাংকারে থাকা ২৬ জন ক্র সদস্যের কোন ক্ষতি হয়নি বলেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

এদিকে ইরানের হরমুজগান প্রদেশের বন্দর ও সামুদ্রিক যান চলাচল বিষয়ক সংস্থার অনুরোধে ‘স্টেন ইমরো’ নামের একটি ব্রিটিশ তেল ট্যাংকার আটক করা নিয়ে তেহরান লন্ডনের মধ্যে উত্তেজনার পারদ চড়েছে।