লক্ষ্মীপুরে গার্মেন্টসের সাঁটার বন্ধ করে ৫ জনকে পেটালো ছাত্রলীগ, আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক:
লক্ষ্মীপুরে ঈদ বাজারে একটি গার্মেন্টসের সাঁটার বন্ধ করে ওই দোকানের মালিকসহ ৫জনকে পেটানোর অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম শামিম ও তার অনুসারীদের বিরুদ্ধে। এসময় দোকান ভাঙচুর করে প্রায় ৫ লাখ টাকা লুটের নেওয়ার অভিযোগ ভূক্তভোগী দোকান মালিকের। বুধবার গভীর রাতে পৌর শহরের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স সংলগ্ন ‘মায়ের দোয়া’ গার্মেন্টস এঘটনা ঘটে। এঘটনায় সাব্বির ও কাউছার নামে ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে আটক করে পুলিশ।
আহতরা হলেন, গার্মেন্টস দোকানের মালিক মো. আলাউদ্দিন, ছেলে আরিফ, আরমান, কর্মচারী শুভ, নোমান। আহতদের উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। অভিযুক্ত শামিম লক্ষ্মীপুর পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট ছাত্রলীগের সভাপতি। আটককৃতরা তারই অনুসারী।

আহত ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গভীর রাতে লক্ষ্মীপুর বাজারের ওই গার্মেন্টসের সামনে নিজেদের একটি টেবিল দোকানের ভেতর নিচ্ছিল কর্মচারী শুভ। সামনে দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় ছাত্রলীগের সভাপতি শামিমের গায়ে ছোয়া লাগে। সাথে সাথেই ক্ষমা চায় শুভ। কিন্তু ছাত্রলীগ নেতা উল্টো তাকে মারধর শুরু করে। এসময় শুভকে বাঁচাতে দোকানের মালিক আলাউদ্দিন এগিয়ে আসে। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে শামিম তার অনুসারীদের নিয়ে সাঁটার বন্ধ করে আলাউদ্দিনসহ ৫জনকে পিটিয়ে আহত করে। এবং ভাঙচুর করে ক্যাশ থেকে নগদ ৫ লাখ টাকা লুট করে নিয়ে যায়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং সাব্বির ও কাউসার নামে দুই ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করে।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম শামিম জানায়, আমার বোনের গায়ে হাত দেওয়ায় ছোট ভাইরা হুমকি ধমকি দিয়েছে। সাঁটার বন্ধ করে মারধর করে টাকা লুটের বিষয় সঠিক নয়। আামাকে ফাঁসানোর জন্য এমন নাটক সাজানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর পুলিশ ফাঁড়ির সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) বিল্লাল জানান, দোকানে ঢুকে মারধরের ঘটনায় সাব্বির ও কাউছার নামে দুই জনকে আটক করা হয়েছে। এবিষয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।