লক্ষ্মীপুরে ঠিকাদার হত্যা চেষ্টা : সেই চেয়ারম্যানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
লক্ষ্মীপুর সদরের দিঘলী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে ২ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে ঠিকাদার জুয়েল রানাকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়। সোমবার (২০ মে) দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী অঞ্চল (চন্দ্রগঞ্জ) আদালতে জুয়েল এ মামলা করেন।
বাদীর আইনজীবী মো. লুৎফুর রহমান রহিম গাজী জানান, আদালতের বিচারক নুসরাত জাহান মামলাটি আমলে নিয়েছেন। এসময় তিনি বিষয়টি নোয়াখালী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন।
অন্য আসামিরা হলেন দিঘলী ইউনিয়নের পশ্চিম দিঘলী গ্রামের ফারুক খাঁন, টিটু ও নিশ্চিন্তপুর গ্রামের মাসুদুর রহমানসহ অজ্ঞাত আরও ৫জন। তারা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমানের অনুসারি হিসেবে পরিচিত।
এজাহার সূত্রে জানা যায়, মেসার্স রুবিনা ট্রেডার্স নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান দিয়ে জুয়েল রানা দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসছে। সম্প্রতি তিনি এলজিইডির জিএনপি-৩ প্রকল্পের অধীনে দিঘলী ইউনিয়নে ৪৮ লাখ টাকার কার্পেটিংয়ের একটি কাজ পান। শ্রমিকরা সড়কের কার্পেটিংয়ের কাজ করার সময় শেখ মজিব অনুসারিদের নিয়ে এসে তা বন্ধ করে দেয়। এসময় ২৪ দিনের মধ্যে শেখ মজিবকে ২ লাখ টাকা দেওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে চলে যায়। গত ১৬ মে রাতে লোকজন দিয়ে দিঘলী বাজারে তার ব্যক্তিগত অস্থায়ী কার্যালয়ে ঠিকাদারকে ডেকে নিয়ে যায়। এসময় গলায় চুরি ধরলে প্রাণ ভয়ে শেখ মজিবকে ৭০ হাজার টাকা দেন ঠিকাদার। দাবি করা টাকা পুরো না দেওয়ায় শেখ মজিবসহ তার লোকজন লাথি-ঘুষিসহ লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম করে। এসময় তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে আসামিরা। আহত অবস্থায় জুয়েল সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।
অভিযোগ অস্বীকার করে দিঘলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ মজিবুর রহমান বলেন, ওই কাজটির অফিসিয়ালি কোন কাজের নির্দেশিকা নেই। ঠিকাদার খামখেয়ালিভাবে কাজটি করছিল। আমার বিরোধী একটি চক্র জুয়েলকে দিয়ে পলিকল্পিতভাবে মামলাটি করিয়েছে।