রায়পুরে নতুন মাছঘাট নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-১২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মেঘনা নদীর তীরে নতুন মাছঘাট করা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ১২ জন আহত হয়েছে। আহতদের রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউনিয়নে মেঘনা নদীর তীর চান্দার খাল নামক স্থানে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রায়পুর থানা ও হাজীমারা ফাঁড়ী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এনিয়ে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা হলেন, আতাউল গনি, সেলিম খান, জয়নাল আবেদীন, মোসলেহ উদ্দিন, আব্দুল কাদের হাওলাদার, ওসমান গনি, আজগর সর্দার, সুমন হাওলাদার ও মফিজ সর্দার।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মেঘনা নদীর তীরে চরবংশী ইউনিয়নের চান্দার খাল নামক স্থানে দীর্ঘদিন ধরে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার সংস্কার করে মাছ ঘাট দিয়ে ব্যবসা করছেন। উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় আলতাফ মাস্টারসহ তার কমিটি বিলুপ্ত করে ওসমান খাঁনকে আহবায়ক করে ৬ সদস্যেও কমিটি ঘোষনা দেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়নসহ স্থানীয় আ’লীগের নেতৃবৃন্দ। পাশাপাশি আলতাফ মাস্টারের নেতৃত্বাধীন ওই ইউনিয়নের মাছ ঘাটসহ সকল কিছু কর্মীদের মাঝে বন্টন করে দেওয়ার ঘোষনাও দেওয়া হয়।

এ সূত্র ধরে ওসমান খাঁ নতুন একটি মাছ ঘাট করতে গেলে এতে বাঁধা দেয় আলতাফ মাস্টারের অনুসারী মফিজ খাঁ, আজগর সর্দার ও সুমন হাওলাদারসহ কয়েকজন। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ১২ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

রায়পুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া জানান, ঘটনায় শুনেই পুলিশ পাঠিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়। দু’পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে আটক করা হয়নি। কোন পক্ষ থেকে লিখিত ভাবেও অভিযোগ করা হয়নি।