বিএনপি মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে

বিএনপির রাজনৈতিক দুরাবস্থার জন্য দলটির নেতাদের দায়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপির এই পরিণতির জন্য তারাই দায়ী। গত নির্বাচনে তারা তিনশ আসনে ছয়শর বেশি দলীয় প্রার্থী দিয়ে মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে।

বুধবার (১লা মে) দিবাগত রাতে সেন্ট্রাল লন্ডনের একটি অভিজাত হোটেলে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের নেতারা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সংসদে সত্যিকারের শক্তিশালী বিরোধী দল চেয়েছিলাম। কিন্তু ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিএনপি নিজেদের কারণেই শোচনীয় পরাজয় বরণ করেছে। তারা মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে। জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে- এতে আমাদের কী করার আছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী দলের নেতাদের মুজিববর্ষ পালনে আন্তরিকভাবে কাজ করার আহ্বান জানায়। প্রবাসী বাংলাদেশি প্রজন্মের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন ও আদর্শ পৌঁছে দিতেও প্রবাসী নেতাদের তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রী।

বুধবার বিকাল ৩টা ৫৫ মিনিটে লন্ডনের হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ভিভিআইপি ফ্লাইট। এ সময় বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের নেতৃত্বে এ সময় যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান।

প্রসঙ্গত, ১০ দিনের সরকারি সফরে বুধবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন শেখ হাসিনা।

এই সফরে লন্ডনে ছোট বোন শেখ রেহানার পরিবারের সঙ্গেও সময় কাটাবেন তিনি। শেখ রেহানার মেয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এমপি টিউলিপ সিদ্দিক গত জানুয়ারিতে দ্বিতীয় সন্তানের মা হয়েছেন। নাতির সঙ্গে এবারই প্রথম দেখা হবে নানি শেখ হাসিনার।

প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গীদের মধ্যে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম প্রমুখ।